,

সর্বশেষ :
শহিদদের শ্রদ্ধা জানাতে কলাগাছের স্মৃতির মিনার রাজবাড়ীতে বই মেলা শুরু রাজবাড়ীতে মেয়েকে ধর্ষণের দায়ে বাবার যাবজ্জীবন উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে ট্রাষ্টি বোর্ডকে আরও ৮ লাখ টাকা দিলেন ডা. আবুল হোসেন বালিয়াকান্দিতে শিশু ছাত্রীদের ধর্ষণ ও যৌন নিপীড়নের অভিযোগে শিক্ষক গ্রেফতার রাজবাড়ীতে ১৫ কেজি গাঁজাসহ স্বামী-স্ত্রী আটক রাজবাড়ীতে কলেজছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগে রাজমিস্ত্রী আটক এক যুগ ধরে চিকিৎসাসেবার নামে প্রতারণা করে আসছেন রাজবাড়ীর পচা কর্মকার! সেদিন রোদ্দুর হয়নি বলেই আজ বৃষ্টি হলো… এহসান কলিন্স শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জনসভায় ফয়সাল সরদারের নেতৃত্বে লক্ষীকোলের ৫ শতাধিক নারী-পুরুষ

রাজবাড়ীতে চার শতাধিক মণ্ডপে হবে দুর্গাপূজা

News

আশিকুর রহমান, নিউজরুম এডিটর : কয়েক দিন পর সনাতন ধর্মালম্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। এ উৎসব উপলক্ষে রাজবাড়ীর চার শতাধিক মণ্ডপে অনুষ্ঠিত হবে দুর্গাপূজা। ইতোমধ্যে মণ্ডপগুলোতে রংতুলির কাজ শেষ হয়েছে, আবার কোথাও কাজ চলছে দ্রুত গতিতে। সব মিলিয়ে আনন্দমুখর পরিবেশ বিরাজ করছে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মধ্যে।

রাজবাড়ী জেলা প্রশাসকের কার্যালয় সূত্র জানায়, এবার জেলার পাঁচটি উপজেলায় ৪১১টি মণ্ডপ তৈরি করা হয়েছে। এরমধ্যে- রাজবাড়ী সদর উপজেলায় রয়েছে ৯৯টি, গোয়ালন্দে ২২টি, পাংশায় ৯১টি, কালুখালীতে ৫৩টি এবং বালিয়াকান্দি উপজেলায় রয়েছে ১৪৬টি মণ্ডপ। প্রতিবারের মতো

এবারো জেলার সবচেয়ে বড় পূজামণ্ডপ তৈরি করা হয়েছে বালিয়াকান্দি উপজেলার জামালপুর সর্বজনীন দুর্গা মন্দিরে।

ওই মন্দিরের সাধারণ সম্পাদক গোবিন্দ বিশ্বাস বলেন, আমাদের মন্দিরে বিগত ২০ বছর ধরে দুর্গাপূজার আয়োজন করা হচ্ছে। তবে গত ৫-৬ বছর ধরে বড় পরিসরে আয়োজন চলছে। এবার মহাভারত, রামায়ন, শিবপুরাণ ও পৌরাণিক কাহিনীকে ধারণ করে প্রায় ২০০টি দেবদেবীর মূর্তি তৈরি করা হয়েছে। ব্যতিক্রমী এ মণ্ডপ তৈরিতে প্রায় পাঁচ হাজার বাঁশ ও বিপুল পরিমাণ লোহা-কাঠ ব্যবহার করা হয়েছে। মণ্ডপ তৈরির কাজ ৭০ ভাগ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এখন শুধু রংয়ের কাজ চলছে, দ্রুত সময়ের মধ্যে মণ্ডপটি পুরোপুরি প্রস্তুত হয়ে যাবে।

এদিকে, দুর্গাপূজাকে ঘিরে ইতোমধ্যে জেলা প্রশাসন ও জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে সব ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। প্রতিটি পূজা মণ্ডপে নিরাপত্তা জোরদার করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে কঠোর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

রাজবাড়ীর সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (ক্রাইম) মো. আছাদুজ্জামান বলেন, জেলায় এবার চার শতাধিক মণ্ডপে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। প্রতিটি পূজা মণ্ডপে পর্যাপ্ত সংখ্যক নারী ও পুরুষ পুলিশ সদস্য, সাদা পোশাকধারী পুলিশ, গ্রাম পুলিশ এবং নারী ও পুরুষ আনসার সদস্য মোতায়েন থাকবে। এদের পাশাপাশি কমিউনিটি পুলিশ ও স্বেচ্ছাসেবক সদস্যরা জ্যাকেট পরে নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করবেন। এছাড়া নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটেরে অধীনে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বেশ কয়েকটি টিম কাজ করবে।

শান্তিপূর্ণভাবে দুর্গাপূজা উদযাপনে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে সহযোগিতা করার জন্য জেলাবাসীর প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর