,

মুশকিল আছানের আশ্বাসে শিক্ষিকার ৩ লাখ টাকা হাতালেন কথিত হুজুর!

News

স্টাফ রিপোর্টার : অলৌকিক কেরামতির মাধ্যমে পারিবারিক মুশকিল আছানের আশ্বাস দিয়ে রাজবাড়ী জেলা সদরের  একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা তাহমিনা সুলতানার (৩৭) কাছ থেকে তিন লাখ ছয় হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন এক কথিত হুজুর।

এ ঘটনায় শিক্ষিকা তাহমিনার স্বামী শুক্রবার (৩ নভেম্বর) রাজবাড়ী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। তহমিনা রাজবাড়ী শহরের ভবানীপুর এলাকার নজরুল ইসলামের স্ত্রী।

তহমিনার স্বামী নজরুল ইসলাম জানান, একটি অনলাইন টেলিভিশনে সিলেটের জিন্দাবাজার এলাকার খাজা শাহআলী হুজুরের দেওয়া পারিবারিক মুশকিল আছানের প্রচারিত একটি বিজ্ঞান দেখেন তাহমিনা। এরপর তিনি ওই বিজ্ঞাপনের দুইটি মোবাইল নম্বরে (০১৭৭৯-৯১২৩৭৯, ০১৭৭৯-৯১২১১৯) ফোন করেন। হুজুরের খাদেম পরিচয় দিয়ে ফোনটি রিসিভ করেন ইকবাল নামের এক ব্যক্তি। পরে ইকবাল কথিত হুজুরের কাছে ফোনটি ধরিয়ে দেন। এসময় কথিত হুজুর সুকৌঁশলে তাহমিনাকে একাটি কোরআন শরীফ বুকে চেপে ধরে তার পারিবারিক সকল সমস্যার কথা খুলে বলতে বলেন। তাহমিনা সবকিছু বলার এক পর্যায়ে হুজুর তাকে ০১৭৭৯-৯১২৩৭৯- এই নম্বরে ২১শ’ ৫০ টাকা হাদিয়া পাঠাতে বলেন। তহমিনা কাউকে কিছু না জানিয়ে গত ১৩ অক্টোবর কথিত হুজুরের দেওয়া নম্বরে হাদিয়ার টাকা পাঠান। এরপর পর্যায়ক্রমে গত ২০ অক্টোবর পর্যন্ত তিনি কথিত হুজুরের কাছে তিন লাখ ছয় হাজার টাকা পাঠান। তারপর থেকে হুজুর আর তাহমিনার ফোন রিসিভ করেননি। পরবর্তীতে তাহমিনা বিষয়টি প্রতারণা বুঝতে পেরে পরিবারের সদস্যদের কাছে ঘটনাটি খুলে বলেন।

রাজবাড়ী সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. তারিক কামাল বলেন, তাহমিনা একজন শিক্ষিত নারী হওয়া স্বত্তেও অচেনা-অজানা কথিত হুজুরের ফাঁদে পাঁ দিয়ে তিন লাখ টাকা বিকাশে পাঠিয়েছেন। এ ঘটনায় তাহমিনার স্বামী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। ঘটনার তদন্ত শুরু এবং অভিযুক্তদের গ্রেফতারে পুলিশ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর