,

শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী হলেন রাজবাড়ী-১ আসনের এমপি কাজী কেরামত আলী

News

রাজবাড়ী : প্রতিমন্ত্রী হিসেবে নতুন শপথ নেওয়া রাজবাড়ী-১ আসনের এমপি, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সরকারি প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন সম্পর্কিত স্থায়ী কমটির সভাপতি আলহাজ্ব কাজী কেরামত আলীকে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার (২ জানুয়ারি) রাত সোয়া ৮টার দিকে বঙ্গভবন থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সময় তিনি নিজেই এ কথা জানিয়েছেন।

সাংবাদিকদের তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী আমাকে শিক্ষা প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব দিয়েছেন। তার দেওয়া এ দায়িত্ব পালনে শতভাগ চেষ্টা চালিয়ে যাবো।

এর আগে সন্ধ্যায় বঙ্গভবনে চার মন্ত্রী ও একজন প্রতিমন্ত্রীকে শপথ বাক্য পাঠ করান রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।

এদিকে সচিবালয় সূত্র জানায়, শপথ নেওয়া চার মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীর মধ্যে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্বে থাকা নারায়ণ চন্দ্র চন্দকে ওই মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর দায়িত্ব দেওয়া হতে পারে।

মন্ত্রিসভার নতুন সদস্য লক্ষ্মীপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য একেএম শাহজাহান কামালকে সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় ও তথ্যপ্রযুক্তিবিদ মোস্তাফা জব্বারকে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের দায়িত্ব দেওয়া হতে পারে।

তবে তাদের কে কোন দফতর পাচ্ছেন- এ বিষয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম জানান, বুধবার (৩ জানুয়ারি) নতুন চার মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীর দফতর বণ্টন করা হবে।

১৯৫৪ সালের ২২ এপ্রিল রাজবাড়ী জেলার সজ্জনকান্দায় জন্ম নেওয়া প্রতিমন্ত্রী কাজী কেরামত আলীর বাবা কাজী হেদায়েত হোসেন এবং মাতা মনাক্কা বেগম। তার স্ত্রীর নাম রেবেকা সুলতানা।

রাজবাড়ী ইয়াসিন উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি, রাজবাড়ী সরকারি কলেজ থেকে এইচএসসি এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিকম সম্মানসহ এমকম ডিগ্রি অর্জন করেন তিনি।

ব্যবসার পাশাপাশি আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত কেরামত আলী ১৯৯০ থেকে রাজবাড়ী জেলায় দলের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

১৯৯২ সালে রাজবাড়ী-১ থেকে ৫ম জাতীয় সংসদে আওয়ামী লীগের মনোনয়নে উপনির্বাচনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন কাজী কেরামত আলী। ১৯৯৬ সালে ৭ম জাতীয় সংসদে এবং ২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত ৯ম জাতীয় সংসদ ও ২০১৪ সালে ১০ম জাতীয় সংসদে আওয়ামী লীগের মনোনয়নে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।

তিনি ৫ম জাতীয় সংসদে টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য এবং ৭ম জাতীয় সংসদে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় এবং ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য, নবম জাতীয় সংসদে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কিমিটির সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন এবং জাতীয় সংসদে লাইব্রেরি কমিটির সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

প্রতিমন্ত্রী ১৯৯৬ থেকে রাজবাড়ী জেলার বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতির সভাপতি, রাজবাড়ী জেলার রোটারি ক্লাবের সদস্য এবং রাজবাড়ী জেলা রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির আজীবন সদস্য।

ইংরেজি ভাষায় দক্ষ কাজী কেরামত আলী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সফরসঙ্গী হিসেবে কুয়েত সফর এবং সরকারি ও ব্যক্তিগত প্রয়োজনে আমেরিকা, কানাডা, চীন, জাপানসহ বিশ্বের অনেক দেশ সফর করেছেন। ব্যক্তি জীবনে তিনি এক মেয়ের জনক।

রাজবাড়ী নিউজ২৪.কম/ আশিক

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর