,

গোয়ালন্দে কমিটি দেয়ায় জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি-সম্পাদককে শোকজ

News

রাজবাড়ী : আগামী এক বছরের জন্য রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলা, পৌরসভা ও  কামরুল ইসলাম সরকারি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে।

উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটিতে নাজিমুল ইসলাম বৃটনকে সভাপতি ও তুহিন দেওয়ানকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে। পৌর কমিটিতে আলামিন মিয়াকে সভাপতি ও রাতুল আহমেদকে সাধারণ সম্পাদক এবং কলেজ কমিটিতে মুনছুর হোসেনকে সভাপতি ও বাবু মণ্ডলকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে।

শনিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জাকারিয়া মাসুদ রাজীব ও সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম এরশাদ স্বাক্ষরিত পৃথক তিনটি সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ তথ্য জানানো হয়।

এদিকে, এই তিনটি কমিটি অনুমোদন দেয়ায় রাজবাড়ী জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জাকারিয়া মাসুদ রাজীব ও সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম এরশাদের প্রতি দলীয় গঠণতন্ত্র ভঙ্গ করার অভিযোগ এনে সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটি থেকে তাদের কারণ দর্শানোর (শোকজ) নোটিশ দেওয়া হয়েছে।

রোববার (২৫ ফেব্রুয়ারি) কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসেন স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ নোটিশ দেওয়া হয়।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২৪ ফেব্রুয়ারি রাজবাড়ী জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক গোয়ালন্দ উপজেলা, গোয়ালন্দ পৌরসভা ও গোয়ালন্দ কামরুল ইসলাম সরকারি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষণা করেন। ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের এক জরুরি সিদ্ধন্তে ওই তিনটি কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করা হলো। এছাড়া দলীয় গঠণতন্ত্র ভঙ্গ করায় রাজবাড়ী জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জাকারিয়া মাসুদ রাজীব ও সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম এরশাদের বিরুদ্ধে কেন সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে না, তা আগামী ৪৮ ঘন্টার মধ্যে যথাযথ কারণ দর্শাতে তাদের নির্দেশ দেওয়া হলো।

এ বিষয়ে রাজবাড়ী জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জাকারিয়া মাসুদ রাজীব বলেন, আমরা কেন্দ্রীয় কমিটির নোটিশের জবারের প্রস্তুতি নিচ্ছি। প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে তা জানানো হবে।

উল্লেখ্য, গত ৬ ফেব্রুয়ারি মেহেদী হাসান রুবেলকে সভাপতি ও আবু বক্কর সিদ্দিক খোকনকে সাধারণ সম্পাদক করে গোয়ালন্দ উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি অনুমোদন দেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসেন।

ওইসময় জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জাকারিয়া মাসুদ রাজীব ও সাধারণ সম্পাদক সাইফুর রহমান এরশাদ অভিযোগ করেন, তাদের সঙ্গে কোনো প্রকার আলোচনা না করে এবং আগের কমিটি বিলুপ্ত না করেই কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক প্রভাবিত হয়ে দলের ত্যাগী ও পরীক্ষীতদের বাদ দিয়ে ওই কমিটি অনুমোদন দিয়েছেন।

এরপর থেকে গোয়ালন্দ উপজেলা ছাত্রলীগের আগের কমিটি ও কেন্দ্র ঘোষিত কমিটি মুখোমুখি অবস্থানে দাঁড়ায়। বিষয়টি নিয়ে জেলায় ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করতে থাকে। এক পর্যায়ে জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক কাজী ইরাদত আলী গোয়ালন্দ উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের নিয়ে মতবিনিময় সভা করে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপকে শান্ত থাকতে বলেন।

শনিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জাকারিয়া মাসুদ রাজীব ও সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম এরশাদ আগামী এক বছরের জন্য গোয়ালন্দ উপজেলা, পৌরসভা ও  কামরুল ইসলাম সরকারি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের নতুন কমিটি ঘোষণা করেন। এর একদিন পরই কেন্দ্রীয় কমিটি থেকে তাদের শোকজ নোটিশ দেওয়া হলো।

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর