,

দৌলতদিয়া ঘাট ও মাদককে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছি : পুলিশ সুপার মিলি

News

রাজবাড়ী : রাজবাড়ীর নবাগত পুলিশ সুপার আসমা সিদ্দিকা মিলি (বিপিএম-সেবা) বলেছেন, রাজধানীর সঙ্গে দেশের দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলের যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম দৌলতদিয়া ঘাট এবং দৌলতদিয়া পতিতালয় ও মাদককে আমি চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছি।

তিনি বলেন, দৌলতদিয়া ঘাটে অনেক বড় একটি সিন্ডিকেট কাজ করে। পুলিশ যদি পোনা মাছ খায়, ওখানে বোয়াল মাছ খাচ্ছে অন্য মানুষ। বোয়াল মাছ যারা খাচ্ছে তাদের ধরাটাও একটু কঠিন। শক্ত জালে তাদের ধরতে হবে। এ জন্য আমার একটু সময় লাগবে। হয়তো আমি বিপ্লব ঘটাতে পারবো না। তবে সবকিছু একটি সিস্টেমের মধ্যে নিয়ে আসবো।

শনিবার (১০ মার্চ) সকাল ১১ টায় পুলিশ সুপারের সম্মেলন কক্ষে জেলায় কর্মরত সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

পুলিশ সুপার বলেন, পতিতাপল্লী একটি সামাজিক সমস্যা। আমাদের আর্থ সামাজিক অবকাঠামোর উন্নয়ন হয়েছে। কিন্তু, আমাদের সামাজিক অবক্ষয় বেড়েছে। প্রযুক্তি ব্যবহার এই অবক্ষয়ের একটি অন্যতম কারণ। যে প্রযুক্তিকে আমাদের ব্যবহার করা উচিত পজিটিভলি, সেটি করা হচ্ছে নেগেটিভলি। দৌলতদিয়া ঘাটে পুলিশ তো সার্বক্ষণিক কাজ করবেই। এর বাইরেও সমাজসেবা অধিদফতর ও বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনকে সঙ্গে নিয়ে কাজ করে পতিতাপল্লীর পরিবেশের উন্নতি করতে চাই।

মতবিনিময় সভায় রাজবাড়ীর অতিরিক্তি পুলিশ সুপার মোহাম্মদ রাকিব খান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. রেজাউল করিম, রাজবাড়ী সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. তারিক কামাল, রাজবাড়ী প্রেসক্লাবের সভাপতি খান মো. জহুরুল হক, সাধারণ সম্পাদক খোন্দকার আব্দুল মতিন, বিটিভির প্রতিনিধি মো. সানাউল্লাহ, বাংলাভিশনের প্রতিনিধি এম. দেলোয়ার হোসেন, যায়যায়দিনের প্রতিনিধি মতিউর রহমান, আরটিভির প্রতিনিধি এম. মনিরুজ্জামান, রাজবাড়ী টেলিভিশন সাংবাদিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক কাজী আব্দুল কুদ্দুস বাবু, রাজবাড়ী রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি মো. ইউসুফ মিয়া, সাধারণ সম্পাদক মো. শিহাবুর রহমানসহ জেলায় কর্মরত বিভিন্ন গণমাধ্যমের সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর