,

রাজবাড়ীতে ১৫ দিনে চারজনকে গলা কেটে হত্যা

News

রাজবাড়ী: রাজবাড়ীতে হাজেরা বেগম (৪৮) নামে এক নারীকে গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। গত ১৫ দিনে তিনটি হত্যাকাণ্ডের রেষ কাটতে না কাটতেই একইভাবে আরও একটি হত্যার ঘটনা ঘটল। এতে জনমনে আতঙ্কের সৃষ্টি হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৬ আগস্ট) মধ্যরাতে সদর উপজেলার আলীপুর ইউনিয়নের বারবাকপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। হাজেরা ওই গ্রামের তমিজউদ্দিনের স্ত্রী।

হাজেরা খাতুনের স্বামী তমিজউদ্দিন জানান, তার দুই ছেলে প্রবাসী। বাড়িতে তিনি স্ত্রী, এক ছেলের বউ ও চার বছর বয়সী নাতি নিয়ে বাড়িতে বসবাস করেন। গতকাল বৃহস্পতিবার রাতের খাবার খেয়ে তারা আলাদা ঘরে ঘুমিয়ে পড়েন। রাত সাড়ে ১২টার দিকে ছেলের বউ স্বপ্নার চিৎকার শুনে ঘুম ভাঙে। এ সময় তিনি ওই ঘরে গিয়ে দেখতে পান খাটের ওপর হাজেরা বেগমের গলা কাটা মরদেহ পড়ে আছে। এ সময় দুর্বৃত্তের অস্ত্রের আঘাতে তার ছেলের বউ স্বপ্না দুই হাতে জখম হয়।

এলাকায় কারো সঙ্গে তাদের কোন শত্রুতা নেই। এ ঘটনা কারা ঘটিয়েছে তা ধারণাও তিনি করতে পারছেন না।

রাজবাড়ী সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি, তদন্ত) আব্দুল্লাহ আল তায়াবীর জানান, মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাজবাড়ী সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিহতের ছেলের বউ স্বপ্নাকে থানায় নেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

উল্লেখ্য, এ হত্যার ঘটনা দিয়ে রাজবাড়ী সদর উপজেলায় গত ১৫ দিনে চারটি গলা কেটে হত্যার ঘটনা ঘটল। গত ৩ আগস্ট সদর উপজেলার মুলঘর ইউনিয়নের পশ্চিম মুলঘর গ্রামে নিজ বসতঘর থেকে দাদি ও নাতনির গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ছাড়া ৮ আগস্ট বানীবহ ইউনিয়নরে আটদাপুনিয়া গ্রামে নিজ বসতঘর থেকে এক গৃহবধূর গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এ তিনটি হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় থানায় পৃথক মামলা দায়ের হয়েছে। পুলিশ কয়েকজনকে আটক করলেও হত্যার কারণ উদঘাটন করতে পারেনি।

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর