,

সৌন্দর্যের আলো ছড়াতে ‘লাইট হাউজ’-এর যাত্রা শুরু

News

রাজবাড়ী : রাজবাড়ী জেলাকে জাতীয় পর্যায়ের সর্বোচ্চ পরিচ্ছন্ন জেলা হিসেবে গড়ে তোলার প্রত্যয় নিয়ে যাত্রা শুরু করেছে ‘লাইট হাউজ’ নামে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন।

শনিবার (২৫ আগস্ট) সকালে জেলা সদরের বসন্তপুর রেল স্টেশনে পরিচ্ছন্ন অভিযান এবং বিভিন্ন প্রজাতির ফুল ও পাতা বাহার গাছের টব সাজানোর মধ্য দিয়ে যাত্রা শুরু করে সংগঠনটি।

এ সময় সোলার ইলেকট্রো বাংলাদেশ লিমিটেডের (এসইবিএল) চেয়ারম্যান ডি.এম মজিবর রহমান, বাংলাদেশের প্রথম অন ডিমান্ড কার সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান চলো টেকনোলজি ও সিমেক্স বাংলাদেশ লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) এবং ‘লাইট হাউজ’-এর সভাপতি দেওয়ান শুভ, ‘লাইট হাউস’-এর সাধারণ সম্পাদক সরদার রফিক, সোলার ইলেকট্রো বাংলাদেশ লিমিটেডের (এসইবিএল) প্রধান নির্বাহী (সিইও) দেওয়ান কানন, ‘লাইট হাউজ’-এর ডোনার সদস্য দেওয়ান আরিফুল ইসলাম মামুন, কাশেম মোল্লা, জহুরুল আজাদসহ সংগঠনটির অন্যান্য সদস্যবৃন্দ ও স্থানীয় বিভিন্ন শ্রেণীপেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

‘লাইট হাউজ’-এর সভাপতি দেওয়ান শুভ বলেন, আমি বিভিন্ন দেশে ঘুরেছি। সেইসব দেশের পরিচ্ছন্নতা দেখে মুগ্ধ হয়েছি। এরমধ্যে অন্যতম ভারতের মেঘালয় রাজ্যে অবস্থিত মাউলিনং গ্রাম। এশিয়ার মধ্যে সবচেয়ে সুন্দর ও পরিচ্ছন্ন গ্রাম মাউলিনং। সৌন্দর্য চর্চা ও পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন থাকা যেন ওই গ্রামের মানুষের পেশা।

শুভ বলেন, প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের প্রাণকেন্দ্র আমাদের এই বাংলাদেশ। বাংলার এই রূপসুষমা ক্রমাগত হারিয়ে যাচ্ছে। এরজন্যে দায়ী আমাদের অপরিচ্ছন্নতা। বাংলার সৌন্দর্য বাংলার সম্পদ। এ সম্পদ আমাদের রক্ষা করতে হবে। তাই আমি আমার নিজ জেলা রাজবাড়ীকে জাতীয় পর্যায়ের সর্বোচ্চ পরিচ্ছন্ন জেলা হিসেবে গড়ে তুলতে বন্ধুদের সঙ্গে নিয়ে ‘লাইট হাউজ’ সংগঠনটি তৈরি করেছি। সংগঠনটির নাম ‘লাইট হাউজ’ করার কারণ হচ্ছে, লাইট হাউজ বা বাতিঘর এমন এক ধরনের সুউচ্চ মিনার আকৃতির দালান যা থেকে বিশেষ ব্যবস্থায় আলো ফেলে সমুদ্রের জাহাজের নাবিককে দিক নির্দেশনা দেওয়া হয় এবং নাবিক সেই নির্দেশনা অনুযায়ী তার লক্ষ্যে পৌঁছায়। আমরা চাই আমাদের ‘লাইট হাউজ’-এর দেখানো পথ অনুযায়ী যুবসমাজ মাদক ও অপরাধমুক্ত থেকে তাদের লক্ষ্যে পৌঁছাক।

তিনি বলেন, প্রাথমিক পর্যায়ে আমি আমার জন্মস্থান রাজবাড়ী সদর উপজেলার বসন্তপুর ইউনিয়নকে টার্গেট করেছি। এই ইউনিয়নকে আমরা এমনভাবে সাজাতে চাই যাতে মেঘালয়ের মাউলিনং গ্রামও এই ইউনিয়নের কাছে হার মানে। পরবর্তীতে পুরো রাজবাড়ী জেলাকে আমরা এমনিভাবে সাজাতে চাই। বসন্তপুরকে সাজাতে শুরুতেই আমরা সংগঠনের পক্ষ থেকে বেতনভূক্ত চারজন পরিচ্ছন্ন কর্মী ও একজন সুপারভাইজার নিয়োগ দিয়েছি। সংগঠনের সদস্যদের সঙ্গে এসকল কর্মীরা কাজ করবেন। পরবর্তীতে আরও কর্মী নিয়োগ দেওয়া হবে।

এই কর্মকান্ডের পাশাপাশি ‘লাইট হাউজ’ বিভিন্ন সমাজসেবামূলক কর্মকান্ড চালিয়ে যাবে বলেও জানান দেওয়ান শুভ। এজন্য সর্বস্তরের মানুষের সার্বিক সহযোগীতা কামনা করেন তিনি।

রাজবাড়ী নিউজ২৪.কম/ আশিক

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর