,

সর্বশেষ :
রাজবাড়ীর জরিনা বেগমের চোখের অপারেশনের জন্য সাহায্যের আবেদন মেয়েকে দৌলতদিয়া যৌনপল্লীতে বিক্রির সময় ধরা পড়লো বাবা! বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনে শিশুদের সঙ্গে কেক কাটলেন রাজবাড়ীর এসপি রাজবাড়ী সদরে জনসমর্থনে এগিয়ে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী ভিপি পিয়াল ৮ মাসেও গ্রেফতার হয়নি কলেজছাত্র রুমানের খুনিরা! ‘সচিব পরিচয়ে ফোন নম্বর সংগ্রহ, সর্বহারা পরিচয়ে চাঁদা দাবি’ রাজবাড়ীতে ৪ টি আগ্নেয়াস্ত্রসহ ২ চরমপন্থী নেতা গ্রেফতার রাজবাড়ীর গোয়ালন্দমোড়ে আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত রাজবাড়ীতে ইয়াবাসহ ৫ মাদক ব্যবসায়ী আটক রাজবাড়ীতে ১২% মূল্য ছাড়ে আইপিএস বিক্রি করছে ‘রানা ইলেকট্রনিক্স সার্ভিসিং সেন্টার’

কালুখালী থেকে উপজেলা চেয়ারম্যান কাজী সাইফুলকে হটানোর দাবি

News

কালুখালী : রাজবাড়ীর কালুখালী থেকে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কাজী সাইফুল ইসলামকে হটানো ও চাঁদপুর বাসস্ট্যান্ডের যাত্রী ছাউনী ভাংচুরের ঘটনায় জড়িতদের শাস্তি এবং পুনঃনির্মাণ দাবিতে মানববন্ধন করা হয়েছে।

শনিবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে চাঁদপুর বাসস্ট্যান্ডে কালুখালী উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে এ কর্মসূচী পালিত হয়।

মানববন্ধন চলাকালে কালুখালী উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এবং জেলা পরিষদের সদস্য মিজানুর রহমান মজনু, কালুখালী প্রেসক্লাবের সভাপতি জুলফিকার আলী, মদাপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. শহিদুল ইসলাম শহিদ, সিনিয়র সহ-সভাপতি ও আসন্ন কালুখালী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন প্রত্যাশী এবিএম রোকনুজ্জামান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলিমুজ্জামান মনেক, মদাপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মোস্তফা জামান জাবেদ প্রমুখ বক্তব্য দেন।

বক্তারা বলেন, কালুখালী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কাজী সাইফুল ইসলাম দীর্ঘদিন ধরে দলের বিভিন্ন নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র ও মিথ্যাচার করে আসছেন। তার ষড়যন্ত্রের শিকার হয়েছেন কালুখালী উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এবং জেলা পরিষদের সদস্য মিজানুর রহমান মজনু ও মদাপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. শহিদুল ইসলাম শহিদসহ আরো অনেকে। শুধু ষড়যন্ত্রই নয় ব্যাপক লুটপাট করে কালুখালী উপজেলা পরিষদকে দূর্নীতির আখড়ায় পরিনত করেছেন কাজী সাইফুল ইসলাম।

এছাড়াও গত সংসদ নির্বাচনে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও রাজবাড়ী-২আসনের এমপি বীরমুক্তিযোদ্ধা মো. জিল্লুল হাকিমের বিরুদ্ধেও কাজ করেছেন তিনি। শুধু বিরোধীতাই নয় জিল্লুল হাকিম যাতে দলীয় মনোনয়ন না পান সেজন্য ষড়যন্ত্রকারীদের সঙ্গেও হাত মিলিয়ে গভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হোন এবং বিভিন্ন স্থানে অপপ্রচার করেন যে জিল্লুল হাকিমের যুগ শেষ।

বক্তারা বলেন, কাজী সাইফুল ইসলাম কালুখালী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হয়েও দলীয় কোন কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাকেন না। উপজেলা আওয়ামী লীগকে তিনি ধ্বংসের দিকে নিয়ে যাচ্ছেন। তাই উপজেলা আওয়ামী লীগকে বাঁচাতে হলে কাজী সাইফুলকে কালুখালী থেকে হটাতে হবে।

বক্তারা আরো বলেন, গত ২১ ফেব্রুয়ারি রাতে কাজী সাইফুল ইসলাম তার সন্ত্রাসী বাহিনী সঙ্গে নিয়ে চাঁদপুর বাসস্ট্যান্ডের যাত্রী ছাউনী ভেঙে গুড়িয়ে দেয়। আর রটিয়ে দেয় যে, জেলা পরিষদের সদস্য মিজানুর রহমান মজনু ওই যাত্রী ছাউনীটি ভেঙে দিয়েছেন। কাজী সাইফুলের এসব ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে।

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর