,

সর্বশেষ :
অর্থনীতিতে এমনটা এর আগে কখনো হয়নি সাবেক সচিব ও ঢাকা বিভাগীয় কমিশনার রাজবাড়ীর কৃতি সন্তান বজলুল করিম ও তার স্ত্রী করোনায় আক্রান্ত রাতের আঁধারে দরিদ্রদের বাড়ি বাড়ি ঈদ সামগ্রী পৌঁছে দিলো ‘মানব কল্যাণ ফাউন্ডেশন’ মন্দিরের সামনে গাঁজা খেতে নিষেধ করায় প্রতিমা ভাংচুর বড় ধরণের করোনা ঝুঁকিতে রাজবাড়ী বালিয়াকান্দির নবাবপুর ইউনিয়নের ১১০০ হতদরিদ্র পরিবারের মধ্যে সরকারি ত্রাণ বিতরণ বসন্তপুর ইউনিয়নের ৮০০ হতদরিদ্র পরিবারের মধ্যে সরকারি ত্রাণ বিতরণ হতদরিদ্রদের বাড়ি বাড়ি ঈদের খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দিলেন প্রবাসীরা করোনা উপসর্গ নিয়ে স্কুলছাত্রের মৃত্যু, দুই বাড়ি লকডাউন করলেন এসিল্যান্ড রাজবাড়ীর করোনা যোদ্ধা চিকিৎসকদের N95 মাস্ক দিলেন সাবেক জেলা জজ

রাজবাড়ীতে প্রতিবন্ধী তরুণীকে ধর্ষণ ও অন্তঃসত্ত্বার ঘটনায় লম্পট মিন্টু গ্রেফতার

News

রাজবাড়ী : রাজবাড়ী সদর উপজেলার পাঁচুরিয়া ইউনিয়নের মুকুন্দিয়া গ্রামে বুদ্ধি প্রতিবন্ধী তরুণীকে (২২) ধর্ষণ ও অন্তঃসত্ত্বার ঘটনায় লম্পট মিন্টু মীরকে (২৮) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার (১০ মে) রাত ৮টার দিকে মুকুন্দিয়া এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। তিনি ওই গ্রামের রওশন মীরের ছেলে।

এর আগে বুধবার (৮ মে) প্রতিবন্ধী ওই তরুণীর বোন বাদী হয়ে মিন্টু মীর ও তার চাচাতো ভাই শাজাহান মীরের স্ত্রী বিউটি বেগমকে (৪০) আসামি করে রাজবাড়ী সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। আট মাস আগে বিউটি বেগমের সহযোগিতায় তার বাড়ির ছাদে ওই প্রতিবন্ধী তরুণীকে ধর্ষণ করেন মিন্টু মীর।

রাজবাড়ী সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) স্বপন কুমার মজুমদার বলেন, ‘প্রতিবন্ধী তরুণীর বোনের দায়েরকৃত মামলার পরিপ্রেক্ষিতে শুক্রবার রাত ৮টার দিকে মিন্টু মীরকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তবে তার ভাবী বিউটি বেগম পলাতক রয়েছে। তাকেও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

ওই প্রতিবন্ধী তরুণীর বোন বলেন, ‘আমার বুদ্ধি প্রতিবন্ধী বোনকে প্রায়ই কু-প্রস্তাব দিতো মিন্টু মীর। আট মাস আগে এক বিকেলে মিন্টু মীরের চাচাতো ভাবী বিউটি বেগমের বাড়ির সামনে দিয়ে হেটে যাওয়ার সময় তিনি টিভি দেখার কথা বলে আমার বোনকে ডেকে তার একতলা বিল্ডিংয়ের ছাদের উপর সিঁড়ি ঘরে নিয়ে যান। এরপর তিনি মোবাইলে মিন্টু মীরকে সেখানে ডেকে নেন। পরে বিউটির সহযোগীতায় মিন্টু মীর আমার বোনকে একাধিকবার জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন। এ ঘটনার পর তারা আমার বোনকে ঘটনাটি কাউকে না বলার জন্য প্রাণনাশের হুমকি দেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘মিন্টু মীরের ধর্ষণের ফলে আমার বোন অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। পরবর্তীতে তার পেটের আকার বড় হতে থাকে। তখন আমরা ভেবেছিলাম ওর পেটে টিউমার হয়েছে। যার কারণে গত ৭ মে রাজবাড়ী শহরের নুর ডায়াগনষ্টিক সেন্টারে ওর আল্ট্রাস্নোগ্রাম করানো হয়। আল্ট্রাস্নোগ্রাম রিপোর্টে কর্তব্যরত চিকিৎসক আমাদের জানান ওর পেটে আট মাসের বাচ্চা রয়েছে। এ ঘটনার শোনার পর আমরা তাকে অনেক জিজ্ঞাসাবাদ করলে এক পর্যায়ে সে ধর্ষণের ঘটনার বর্ণনা করে। পরে আমি বাদী হয়ে এ ঘটনায় মামলা দায়ের করি।’

রাজবাড়ী নিউজ২৪.কম/ আশিক

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর