,

সর্বশেষ :
রাজবাড়ীতে শিশু ধর্ষণ, অভিযুক্ত ব্যক্তি গ্রেফতার দৌলতদিয়ায় নুরু মন্ডলের পক্ষে নৌকায় ভোট চাইলেন শোভন-রাব্বানী উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে নুরুল ইসলাম মন্ডলের বিকল্প নেই : ছাত্রলীগ নেতা রুবেল রাজবাড়ীর সামাজিক সংগঠন ‘মানবতার জয়’-এর নবগঠিত কমিটির পরিচিতি সভা পদ্মা সেতুতে মাথা লাগার গুজব ছড়ানোয় রাজবাড়ীতে স্কুলছাত্র আটক অসুস্থ আ’লীগ নেতা সামশুল আলমের পাশে দাঁড়ালেন কাজী ইরাদত আলী রাজবাড়ীতে ভুয়া চিকিৎসক আটক, ২০ হাজার টাকা জরিমানা রাজবাড়ীতে আ’লীগ নেতার দুঃসময়ে পাশে দাড়াচ্ছেন না দলীয় নেতৃবৃন্দ! রাজবাড়ীর নবাগত জেলা প্রশাসককে গ্রাম পুলিশ বাহিনীর ফুলেল শুভেচ্ছা কৃষ্ণের ছদ্মবেশ নিয়েও পুলিশের হাতে ধরা পড়লো পলাতক আসামি লাল্টু

রাজবাড়ীতে আ’লীগ নেতার দুঃসময়ে পাশে দাড়াচ্ছেন না দলীয় নেতৃবৃন্দ!

News
হাসপাতালের বেডে শুয়ে আছেন অসুস্থ্য সামশুল আলম।

রাজবাড়ী : মো. সামশুল আলম (৬৫)। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শকে হৃদয়ে ধারণ করে ছাত্রজীবন থেকেই আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত তিনি। টানা প্রায় ২০ বছর ধরে দায়িত্ব পালন করছেন রাজবাড়ী পৌরসভার তিন নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে। ওই ওয়ার্ডেরই স্থায়ী বাসিন্দা এই আওয়ামী লীগ নেতা। বর্তমানে ‘ডায়াবেটিক ফুট আলসার’ রোগে আক্রান্ত হয়ে ফরিদপুর ডায়াবেটিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন সামশুল আলম। দলের প্রতি অগাধ ভালোবাসা আর অর্থলোভ না থাকায় দীর্ঘবছর ক্ষমতাসীন দলের গুরুত্বপূর্ণ পদে থেকেও অর্থনৈতিকভাবে খুব বেশি স্বাবলম্বী হতে পারেননি তিনি। তাই তার চিকিৎসা করাতে গিয়ে হিমশিম খেতে হচ্ছে পরিবারের সদস্যদের।

পরিবারের সদস্যদের দাবি, আওয়ামী লীগের একজন ত্যাগী নেতা হওয়া সত্ত্বেও সামশুল আলমের এই দুঃসময়ে তার পাশে দাড়াচ্ছেন না দলীয় নেতৃবৃন্দ।

সামশুল আলমের ছেলে রফিকুল আলম সাকিব বলেন, ‘আড়াই মাস আগে আমার বাবার ডান পাঁয়ে ফাটা রোগ দেখা দেয়। পরে সেখান থেকে ইনফেকশন করে ঘাঁ সৃষ্টি হয়। এ অবস্থায় আমরা তাকে রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে ভর্তি করি। পরে তাকে ফরিদপুর ডায়াবেটিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরীক্ষা-নীরীক্ষা করে সেখানকার চিকিৎসকরা জানান আমার বাবার ‘ডায়াবেটিক ফুট আলসার’ রোগ হয়েছে। অর্থাৎ ডায়াবেটিস থাকার কারণে পাঁ ফাটা থেকে ঘাঁয়ের সৃষ্টি হয়ে সেখানে পঁচন ধরেছে। চিকিৎসকরা বলেছেন যতোদিন পর্যন্ত এটি না সারবে ততোদিন পর্যন্ত ওই স্থানে অপারেশন করে মাংস ও চামরা কেটে কেটে ফেলে দিতে হবে। এ পর্যন্ত বাবার চার বার অপারেশন করা হয়েছে। প্রতিটি অপারেশনে ব্যায় হচ্ছে ২০ হাজার টাকা করে। এছাড়া তিনটি করে ইনজেকশন এবং ওষুধসহ প্রতিদিন ব্যায় হচ্ছে প্রায় সাড়ে পাঁচ হাজার টাকা করে।’

তিনি আরও বলেন, ‘জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শকে বুকে ধারণ করে আমার বাবা ছাত্রজীবন থেকেই আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। টানা প্রায় ২০ বছর ধরে তিনি রাজবাড়ী পৌরসভার তিন নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। দলের প্রতি অগাধ ভালোবাসা আর অর্থলোভ না থাকায় দীর্ঘবছর ক্ষমতাসীন দলের গুরুত্বপূর্ণ পদে থেকেও আমার বাবা কোন টাকা সঞ্চয় করতে পারেননি। যে কারণে তার চিকিৎসা করাতে গিয়ে আমাদের হিমশিম খেতে হচ্ছে। আমরা ছোটবেলা থেকে দেখে এসেছি আমার বাবা খেয়ে না খেয়ে দলের জন্য কাজ করেছেন। অথচ বাবার অসুস্থ্যতার বিষয়ে আমরা রাজবাড়ী পৌর আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দের সঙ্গে যোগাযোগ করেছি। কিন্তু তারা বিষয়টি কোন গুরুত্ব দেননি; যা আমাদের জন্য অত্যান্ত কষ্টদায়ক। তাই সমাজের দানশীল ব্যক্তি, জনপ্রতিনিধি ও সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোর কাছে আমি আমার বাবার চিকিৎসার জন্য সাহায্য কামনা করছি।’

সাহায্য পাঠানোর ঠিকানাঃ- ফারহানা আলম, ডাচ্ বাংলা ব্যাংক লিঃ, সঞ্চয়ী হিসাব নম্বর- ১৪৮১৫১১৮৮৪২৩ , মোবাইল নম্বর- ০১৬২৬-১০৮৫৩৩ (রফিকুল আলম সাকিব), সামশুল আলমের পার্সোনাল বিকাশ নম্বর- ০১৭২১-৬৪৫৮৫৪।

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর