,

অ্যাডভোকেট সুদীপ্ত গুহ ও সিএসআই তাজ উদ্দিনের দ্বন্দ্বের অবসান

News
অ্যাডভোকেট সুদীপ্ত গুহ

রাজবাড়ী : রাজবাড়ী জেলা জজ কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট সুদীপ্ত গুহ তার সঙ্গে দুর্ব্যবহার করার অভিযোগে গত ২৩ জুলাই সদর কোর্টের সিএসআই মো. তাজ উদ্দিনের বিরুদ্ধে জেলা পুলিশ সুপার বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। বিষয়টি নিয়ে আইনজীবী ও সিএসআই-এর দ্বন্দ্ব চরম আকার ধারণ করায় রাজবাড়ী নিউজ২৪.কমে একটি সংবাদও প্রকাশিত হয়। অবশেষে রাজবাড়ীর বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আবু হাসান খায়রুল্লাহ’র হস্তক্ষেপে অ্যাডভোকেট সুদীপ্ত গুহ ও সিএসআই তাজ উদ্দিনের সেই দ্বন্দ্বের অবসান হয়েছে।

অ্যাডভোকেট সুদীপ্ত গুহ রাজবাড়ী নিউজ২৪.কম-কে বলেন, ‘গত ২১ জুলাই একটি বিষয় নিয়ে রাজবাড়ী সদর কোর্টের সিএসআই মো. তাজ উদ্দিন কোর্টের স্টাফদের সামনে আমার সঙ্গে  চরম দুর্ব্যবহার করেন। বিষয়টি নিয়ে আমি ২৩ জুলাই জেলা পুলিশ সুপারের কাছে একটি লিখিত অভিযোগ দেই। এরপর থেকে সিএসআই তাজ উদ্দিন ও আমার মধ্যে দ্বন্দ্ব চলমান ছিলো। অবশেষে বিষয়টি রাজবাড়ীর বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আবু হাসান খায়রুল্লাহ স্যারের কান পর্যন্ত পৌছায়। সোমবার (০৫ আগস্ট) খায়রুল্লাহ স্যার আমাকে ও সিএসআই তাজ উদ্দিনকে তার খাস কামরায় ডেকে নেন। সেখানে জেলা বারের সভাপতি অ্যাডভোকেট বাবু গণেশ নারায়ন চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট কে.এ বারী, জেলা ও দায়রা জজ কোর্টের পিপি অ্যাডভোকেট উজির আলী শেখ, জেলা বারের কার্য নির্বাহী পরিষদের এজিএস আব্দুর রাজ্জাক ও সদর কোর্টের ইন্সপেক্টর গোলাম রব্বানীসহ কোর্টের অন্যান্য স্টাফগণ উপস্থিত ছিলেন। সকলের সঙ্গে আলোচনা করে খায়রুল্লাহ স্যার আমাকে ও সিএসআই তাজ উদ্দিনকে দ্বন্দ্ব ভুলে গিয়ে কোলাকুলি করতে নির্দেশ দেন। সেসময় সিএসআই তাজ উদ্দিন তার দুর্ব্যবহারের জন্য আমার কাছে দু:খ প্রকাশ করেন। পরে আমরা একে অপরের সঙ্গে বুকে বুক মিলিয়ে কোলাকুলি করি এবং দ্বন্দ্ব ভুলে গিয়ে একে অপরকে সহযোগীতামূলক মনোভাব নিয়ে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করি।’

অ্যাডভোকেট সুদীপ্ত গুহ আরও বলেন, ‘সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আবু হাসান খায়রুল্লাহ স্যার এবং জেলা বারের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক মহোদয় আমার অভিভাবক। তারা আমাকে যেভাবে নির্দশেনা দিয়েছেন আমি সেভাবেই চলেছি। সিএসআই তাজ উদ্দিনের বিরুদ্ধে এখন আর আমার কোন ক্ষোভ বা অভিযোগ নেই।’

এ বিষয়ে সিএসআই তাজ উদ্দিন বলেন, ‘রাজবাড়ীর বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আবু হাসান খায়রুল্লাহ স্যার আমার ও অ্যাডভোকেট সুদীপ্ত গুহ’র দ্বন্দ্ব মিটমাট করে দিয়েছেন। এখন আর আমাদের মধ্যে কারও প্রতি কারও কোন রাগ বা অভিযোগ নেই।’

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর