,

সর্বশেষ :
শহীদওহাবপুর ও খানখানাপুর ইউনিয়নে বিট পুলিশিং কার্যক্রম শুরু ‘খানখানাপুর প্রবাসী কল্যাণ সংগঠন’-এর উদ্যোগে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ রাজবাড়ীর কৃতি সন্তান সাবেক জেলা জজ শামসুল হক এর বড় সন্তান শামসুল আরেফিন করোনা পজেটিভ। ভাড়া বকেয়া : শিক্ষার্থীর মূল্যবান সার্টিফিকেট ভাগাড়ে ফেললেন বাড়িওয়ালা। বসন্তপুর ইউপির মেম্বার জানে আলমের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনৈতিক কর্মকান্ডের অভিযোগ রাজবাড়ীর বসন্তপুর ইউনিয়নে বিট পুলিশিং কার্যক্রম শুরু দৌলতদিয়ায় যৌনকর্মী ও শিশুদের মধ্যে বিস্কুট বিতরণ রাজবাড়ীতে আশঙ্কাজনকভাবে বাড়ছে করোনা সংক্রমণের হার – Facebook Live রাজবাড়ীতে আশঙ্কাজনকভাবে বাড়ছে করোনা সংক্রমণের হার রাজবাড়ীতে গণমাধ্যমকর্মীদের সুরক্ষা সামগ্রী দিলো পারলিন গ্রুপ

মীর মশাররফ হোসেনের ১৭২তম জন্মবার্ষিকী পালিত

News

বালিয়াকান্দি : রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দিতে বাংলা সাহিত্যের অন্যতম দিকপাল, কালজয়ী উপন্যাস ‘বিষাদ সিন্ধু’ রচয়িতা মীর মশাররফ হোসেনের ১৭২তম জন্মবার্ষিকী পালিত হয়েছে।

বুধবার (১৩ নভেম্বর) নবাবপুর ইউনিয়নের পদমদীতে মীর মশাররফ হোসেন স্মৃতিকেন্দ্রে বাংলা একাডেমি আয়োজিত দুইদিন ব্যাপী অনুষ্ঠান মালার প্রথম দিনে  মীরের সমাধিস্থলে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধাঞ্জলি, দোয়া মাহফিল ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান জেলা প্রশাসক, বাংলা একাডেমি, উপজেলা পরিষদ, উপজেলা প্রশাসন, মীর মশাররফ হোসেন সাহিত্য পরিষদ, নবাবপুর ইউনিয়ন পরিষদ ও সোনাপুর মীর মশাররফ হোসেন কলেজ।

শ্রদ্ধাঞ্জলি শেষে মীর মশাররফ হোসেনের আত্মার শান্তি কামনা করে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। দোয়া মাহফিল পরিচালনা করেন সোনাপুর মীর মশাররফ হোসেন কলেজের সহকারী অধ্যাপক মোহাম্মদ মাহ্ফুজুর রহমান।

বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক হাবীবুল্লাহ সিরাজীর সভাপতিত্বে অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন- রাজবাড়ী জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগম, রাজবাড়ী সদর উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট ইমদাদুল হক বিশ্বাস, বালিয়াকান্দি উপজেলা চেয়ারম্যান মো. আবুল কালাম আজাদ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইশরাত জাহান, রাজবাড়ী সরকারি কলেজের প্রাক্তন অধ্যক্ষ প্রফেসর ফকরুজ্জামান মুকুট ও নবাবপুর ইউপি চেয়ারম্যান আবুল হাসান আলী প্রমূখ।

স্বাগত বক্তব্য দেন- বাংলা একাডেমির সচিব মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন। মীর মশাররফ হোসেনের “মনীষিতা” শীর্ষক প্রবন্ধ পাঠ করেন লেখক ও গবেষক ড. ইসরাইল খান।

এসময় উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মো. মনিরুজ্জামান মনির, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান খোদেজা বেগম, সোনাপুর মীর মশাররফ হোসেন কলেজের (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যক্ষ মো. কামাল হোসেনসহ শিক্ষক, শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

আলোচনা সভা শেষে মীর মশাররফ হোসেন স্মৃতিকেন্দ্রে চত্বরে একক গ্রন্থমেলা পরিদর্শন করেন আমন্ত্রিত অতিথিরা। পরে বিকেলে স্থানীয় শিল্পীদের পরিবেশনায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করেন সোনাপুর মীর মশাররফ হোসেন কলেজের বাংলা বিভাগের প্রভাষক ভবেন্দ্রনাথ বিশ্বাস। বৃহস্পতিবার (১৪ নভেম্বর) সকাল ৯ টা থেকে বিকেল ৫ পর্যন্ত একক গ্রন্থমেলা অনুষ্ঠিত হবে।

উল্লেখ্য, মীর মশাররফ হোসেন ১৮৪৭ সালের ১৩ নভেম্বর কুষ্টিয়া জেলার কুমারখালী উপজেলা লাহিনীপাড়া গ্রামের মাতুলালয়ে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ১৯১১ সালের ১৯শে ডিসেম্বর রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার নবাবপুর ইউনিয়নের পদমদী গ্রামে মারা যান। পরে পদমদীতে তাকে দাফন করা হয়। সাহিত্য ক্ষেত্রে মীর মশাররফ হোসেন উজ্বল দৃষ্টান্ত রেখে গেছেন। গল্প, উপন্যাস, নাটক, কবিতা, আত্মজীবনী, প্রবন্ধ ও ধর্মবিষয়ক ৩৭টি বই রচনা করেছেন মীর মোশাররফ হোসেন। সাহিত্য রচনার পাশাপাশি কিছুদিন তিনি সাংবাদিকতাও করেছেন। মীর মশাররফ হোসেনের রচনাসমগ্রের মধ্যে রত্নাবতী, গৌরি সেতু, বসন্ত কুমারী, জমিদার দর্পণ, সংগীত লহরী, উদাসীন পথিকের মনের কথা, মদিনার গৌরব, বিষাদ সিন্ধু, গো-জীবন, বেহুলা গীতাভিনয়, গাজী মিয়ার বোস্তানী, মৌলুদ শরীফ, মুসলমানের বাঙ্গালা শিক্ষা, বিবি খোদেজার বিবাহ, হযরত ওমরের ধর্মজীবন লাভ প্রভৃতি উল্লেখযোগ্য।

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর