,

সর্বশেষ :
শহীদওহাবপুর ও খানখানাপুর ইউনিয়নে বিট পুলিশিং কার্যক্রম শুরু ‘খানখানাপুর প্রবাসী কল্যাণ সংগঠন’-এর উদ্যোগে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ রাজবাড়ীর কৃতি সন্তান সাবেক জেলা জজ শামসুল হক এর বড় সন্তান শামসুল আরেফিন করোনা পজেটিভ। ভাড়া বকেয়া : শিক্ষার্থীর মূল্যবান সার্টিফিকেট ভাগাড়ে ফেললেন বাড়িওয়ালা। বসন্তপুর ইউপির মেম্বার জানে আলমের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনৈতিক কর্মকান্ডের অভিযোগ রাজবাড়ীর বসন্তপুর ইউনিয়নে বিট পুলিশিং কার্যক্রম শুরু দৌলতদিয়ায় যৌনকর্মী ও শিশুদের মধ্যে বিস্কুট বিতরণ রাজবাড়ীতে আশঙ্কাজনকভাবে বাড়ছে করোনা সংক্রমণের হার – Facebook Live রাজবাড়ীতে আশঙ্কাজনকভাবে বাড়ছে করোনা সংক্রমণের হার রাজবাড়ীতে গণমাধ্যমকর্মীদের সুরক্ষা সামগ্রী দিলো পারলিন গ্রুপ

সুলতানপুরে যৌতুক না পেয়ে স্ত্রীকে নির্যাতন করে বাড়ি থেকে বিতাড়িত

News

রাজবাড়ী : রাজবাড়ী সদর উপজেলার সুলতানপুর ইউনিয়নের চর শ্যামনগর গ্রামে দাবিকৃত যৌতুকের টাকা না পেয়ে রিমা আক্তার (২২) নামে এক গৃহবধূকে শারীরিক নির্যাতন করে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দিয়েছে তার স্বামী ইসলাম শেখ (৩৬)।

এ ঘটনায় গত ২২ জানুয়ারি গৃহবধূ রিমা বাদী হয়ে তার স্বামীর বিরুদ্ধে রাজবাড়ীর বিজ্ঞ ১নং আমলি আদালতে একটি মামলা দায়ের করেছেন।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, রাজবাড়ী সদর উপজেলার সুলতানপুর ইউনিয়নের চর শ্যামনগর গ্রামের তোতা শেখের ছেলে ইসলাম শেখের সঙ্গে বিগত ২০১৭ সালের ৩রা মার্চ খানখানাপুর বেপারীপাড়ার মৃত তৈয়ব আলী শেখের মেয়ে রিমা আক্তারের বিয়ে হয়। বিয়ের সময় রিমার সুখের কথা ভেবে তার মা ও ভাইয়েরা তার স্বামী ইসলাম শেখকে বিভিন্ন প্রকার আসবাবপত্র ও স্বর্ণালংকার উপঢৌকন হিসেবে প্রদান করেন। যার আনুমানিক মূল্য আড়াই লাখ টাকা। বিয়ের পর ইসলাম বিদেশে যাওয়ার জন্য রিমাকে তার মা ও ভাইদের কাছ থেকে দুই লাখ টাকা যৌতুক এনে দেওয়ার জন্য শারিরীক ও মানসিক নির্যাতন চালাতে থাকে। রিমা উপায়ন্ত না পেয়ে বিষয়টি তার মা ও ভাইদের জানালে তার সুখের কথা চিন্তা করে মা ও ভাইয়েরা ইসলামকে নগদ দুই লাখ টাকা প্রদান করেন। এরপর ইসলাম বিদেশে গিয়ে পুনরায় দেশে ফিরে এসে রিমাকে তার মা ও ভাইদের কাছ থেকে আরও এক লাখ টাকা যৌতুক এনে দেওয়ার জন্য শারিরীক ও মানসিক নির্যাতন চালাতে থাকে। রিমা তার মা ও ভাইদের মান সম্মানের কথা ভেবে নির্যাতন সহ্য করে ঘর সংসার করতে থাকে। কিন্তু গত এক মাস আগে ইসলাম  যৌতুকের দাবিতে রিমাকে শারিরীক নির্যাতন করে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেয়। এরপর রিমা তার মা ও ভাইদের বাড়িতে গিয়ে আশ্রয় নিয়ে সেখানে বসবাস করছেন।

গত ২০ জানুয়ারি রিমার মা ইসলামকে খবর দিয়ে তাদের বাড়িতে যেতে বলেন। ইসলাম সেখানে যাওয়ার পর তাকে আদর আপ্যায়ন শেষে রিমা ও তার মা রিমাকে ঘরে ফিরিয়ে নিয়ে সংসার করার অনুরোধ করেন। এসময় ইসলাম জানায় যৌতুক হিসেবে নগদ এক লাখ টাকা পেলে তবেই সে রিমাকে ঘরে ফিরিয়ে নিবে। এসময় রিমা ও তার মা এবং ভাইয়েরা যৌতুক দিতে অস্বীকার করলে ইসলাম রাগান্বিত হয়ে রিমাকে তালাক দেওয়ার হুমকি দিয়ে সেখান থেকে চলে যায়।

এ ঘটনায় ন্যায় বিচারের আশায় গৃহবধূ রিমা বাদী হয়ে তার স্বামীর বিরুদ্ধে গত ২২ জানুয়ারি রাজবাড়ীর বিজ্ঞ ১নং আমলি আদালতে ২০১৮ সালের যৌতুক নিরোধ আইনের ৩ ধারায় মামলাটি দায়ের করেন।

এ বিষয়ে গৃহবধূ রিমা বলেন, আমি যখন খুব ছোট ছিলাম তখন আমার বাবা মারা যায়। বর্তমানে আমি মা ও ভাইদের বাড়িতে খুব কষ্টে দিনযাপন করছি। শুনছি আমার স্বামী এখন আমাকে এভাবে ফেলে রেখে আবারও বিদেশে যাওয়ার পাঁয়তারা করছে। আমি আদালতে মামলা দায়ের করছি। আমার বিশ্বাস আমি ন্যায় বিচার পাবো।

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর