,

সর্বশেষ :
খাদ্য সামগ্রী বিতরণ অব্যাহত রেখেছে ‘মানবিক রাজবাড়ী’ রাজবাড়ীতে সরকারি নির্দেশনা না মানায় ৩ দোকানিকে জরিমানা খানখানাপুরকে করোনামুক্ত রাখতে নিরলস পরিশ্রম করছেন বশির ও ফরহাদ রাজবাড়ীতে অসহায় মানুষের মধ্যে খিচুরি বিতরণ পাংশায় সেই যুবকের শরীরে করোনা পাওয়া যায়নি রাজবাড়ীতে আরও কঠোর হচ্ছে প্রশাসন রাতের আধাঁরে দরিদ্রদের ঘরে ঘরে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দিলো ‘মানবিক রাজবাড়ী’ রাতের আধাঁরে দরিদ্রদের ঘরে ঘরে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দিলেন ‘ঢাকাস্থ খানখানাপুর সমিতি’র সদস্যরা ঢাকা থেকে পালানো করোনায় আক্রান্ত তরুণীকে পাওয়া গেল রাজবাড়ীতে বসন্তপুরে মাছরাঙা ব্যবসায়ী সমিতির উদ্যোগে হতদরিদ্রদের মধ্যে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

খানখানাপুর ও শহীদওহাবপুরে পুলিশের হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও মাস্ক বিতরণ

News

রাজবাড়ী : করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে নিজস্ব উদ্যোগে ৫০ হাজার হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরী করে রাজবাড়ী জেলার পাঁচটি উপজেলার সাধারণ মানুষের মধ্যে বিনামূল্যে বিতরণ করছে জেলা পুলিশ।

তারই ধারাবাহিকতায় জেলা পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান, পিপিএম-এর নির্দেশে বৃহস্পতিবার (২৬ মার্চ) বিকেলে সদর উপজেলার খানখানাপুর ও শহীদওহাবপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে ঘুরে সাধারণ মানুষের মধ্যে দুই শতাধিক হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ করেছেন খানখানাপুর পুলিশ তদন্তকেন্দ্রের ইনচার্জ ইন্সপেক্টর মো. শহীদুল ইসলাম। এসময় নিজের ব্যক্তিগত উদ্যোগে এক হাজার মাস্কও বিতরণ করেন তিনি।

হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও মাস্ক বিতরণকালে খানখানাপুর পুলিশ তদন্তকেন্দ্রের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. জাফর ইকবাল, রাজবাড়ী সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি রেজাউজ্জামান খাঁন বাবু, যুগ্ম সম্পাদক মো. ফজলুর রহমান, খানখানাপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. আমির আলী মোল্লা, শহীদ ওহাবপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. মোস্তাফিজুর রহমান ও আওয়ামী লীগ নেতা মো. আমানসহ অন্যান্য পুলিশ সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

খানখানাপুর পুলিশ তদন্তকেন্দ্রের ইনচার্জ ইন্সপেক্টর মো. শহীদুল ইসলাম বলেন, ‘বর্তমানে হ্যান্ড স্যানিটাইজার খুবই গুরুত্বপূর্ণ ও প্রয়োজনীয় একটি জিনিসে পরিণত হয়েছে। অথচ মানুষের প্রয়োজন অনুযায়ী বাজারে সেগুলো পাওয়া যাচ্ছে না। কোথাও কোথাও পাওয়া গেলেও অনেকেরই তা কেনার সামর্থ্য নেই। তাই চরম সংকটের এই মুহুর্তে আমাদের পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান, পিপিএম স্যার নিজস্ব উদ্যোগে ৫০ হাজার হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরী করে জেলার পাঁচটি উপজেলার সাধারণ মানুষের মধ্যে বিনামূল্যে বিতরণ করছেন। পুলিশ সুপার স্যারের নির্দেশে আমি খানখানাপুর ও শহীদওহাবপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে ঘুরে সাধারণ মানুষের মধ্যে দুই শতাধিক হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ করেছি। পাশাপাশি আমার ব্যক্তিগত উদ্যোগে এক হাজার মাস্কও বিতরণ করেছি।’

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর