,

সর্বশেষ :
বঙ্গবন্ধু মানব কল্যাণ পরিষদ রাজবাড়ী জেলা শাখার কমিটি অনুমোদন পাংশায় প্রেমের ফাঁদে ফেলে ফুপাতো ভাইয়ের স্ত্রীকে বিয়ে, পরে অস্বীকার রাজবাড়ীতে এইচএসসি’তে ফরম পূরণ করতে না পারা শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন বসন্তপুর ইউপির ৯নং ওয়ার্ডকে ‘মডেল ওয়ার্ড’ বানাতে চান কাজী লুৎফর ৩ বছরেও শেষ হয়নি বাগমারা-জৌকুড়া সড়কের উন্নয়ন কাজ, এলাকাবাসীর বিক্ষোভ রাজবাড়ী বাজারে দোকানে ঢুকে মালিককে মারপিটের চেষ্টা রাজবাড়ীতে তুলে নিয়ে কিশোরীকে বিয়ে, কাজিসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা কেন্দ্রীয় কৃষকলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হক’কে গণ সংবর্ধনা ফুডপ্যান্ডা এখন রাজবাড়ী সদরে বসন্তপুর ইউপির একটি মসজিদে চেয়ারম্যান প্রার্থী সাজ্জাদ বিশ্বাসের অনুদান প্রদান

ভূমি সেবায় অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন এসিল্যান্ড আরিফ

News

রাজবাড়ী : রাজবাড়ী সদর উপজেলার বর্তমান সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আরিফুর রহমানের আন্তরিক প্রচেষ্টায় বদলে গিয়েছে সদর উপজেলা ভূমি অফিসের কর্মকান্ডের চিত্র।

আগে এই অফিসে নামজারির আবেদন নিস্পত্তি হতে কখনও কখনও বছর কেটে যেত। মানুষ মাসের পর মাস ঘুরত। তবে সেই চিত্র এখন আর নেই। চলতি মাসের দুই তারিখ খবর নিয়ে জানা যায় জুন মাস পর্যন্ত নামজারির জন্য আবেদনকৃত সকল আবেদন নিস্পত্তি হয়েছে। অর্থাৎ, দুই মাসের অতিরিক্ত সময়ের কোন আবেদন এখন আর অপেক্ষমান নেই।

এ প্রসঙ্গে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আরিফুর রহমান জানান, ‘বিশেষ কোন কারণ ছাড়া কোন আবেদনই দুই মাসের অতিরিক্ত সময় অপেক্ষমান রাখা হয় না। প্রত্যেক আবেদনই আইনমোতাবেক ২৮ কার্যদিবসের মধ্যে নিস্পত্তির জন্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশ রয়েছে। সেই অনুযায়ী বিশেষ কোন কারণ ছাড়া সকল আবেদনই নীতিমালায় উল্লেখিত সময়ের মধ্যে নিস্পত্তি করা হয়।

তিনি আরও জানান, ‘এখন রাজবাড়ী সদর উপজেলা ভূমি অফিসে শতভাগ ই-নামজারি চালু হয়েছে। সেবা গ্রহীতারা যে কোন ইউডিসি বা সাধারণ কম্পিউটারের দোকান থেকে আবেদন করতে পারেন। অথবা নিজেরাও খুব সহজেই নিজেদের আবেদন করতে পারেন। আবেদন করার জন্য আগের মত কোন তৃতীয় পক্ষের স্মরণাপন্ন হতে হয় না। আবেদনের সাথে প্রত্যেক আবেদনকারী একটি মোবাইল নম্বর প্রদান করেন। যে নম্বরে স্বয়ংক্রিয়ভাবে শুনানীসহ অন্যান্য তথ্য আবেদনকারী মেসেজের মাধ্যমে পেয়ে যান। আর শুনানীর তারিখে যেসকল আবেদনকারীগণ যথাযথ কাগজপত্র নিয়ে শুনানীর জন্য আসেন, তাদের কাগজপত্র আইনগতভাবে সঠিক থাকলে আবেদনকারীগণ শুনানীর দিনেই সরকারী ফি প্রদান করে পর্চা নিয়ে যেতে পারেন। সদর উপজেলা ভূমি অফিসে এসে সেবা গ্রহীতাদের হয়রানী হবার কোন অবকাশ নেই। কোন দালালের এখানে দৌরাত্ম দেখানোর সুযোগ নেই। আর সদর উপজেলার সবকয়টি ইউনিয়ন ভূমি অফিসে সকল সেবার সরকারী খরচের চার্ট টাঙানোর পাশাপাশি অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (রাজস্ব), জেলা প্রশাসক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) এর মোবাইল নম্বর দেওয়া রয়েছে। সেবা গ্রহীতারা নামজারি, দাখিলা বা অন্য কোন কাজে ভূমি অফিসে এসে হয়রানীর শিকার হলে সাথে সাথে উক্ত নাম্বারগুলিতে যোগাযোগ করে অভিযোগ করতে পারবেন।’

নামজারি যথাসময়ে সম্পাদনের ক্ষেত্রে কোন প্রতিবন্ধকতা আছে কিনা জানতে চাইলে এসিল্যান্ড আরিফুর রহমান জানান, ‘ভূমি বিষয়ক কাজ অনেক স্পর্শকাতর। কাগজপত্র যথাযথ না থাকলে যথা সময়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া যায় না। এ ক্ষেত্রে সেবা গ্রহীতার কাছে অনেক সময় যথাযথ কাগজ চাইলে তারা তা দেন না। উল্টো ভুল বুঝে মনক্ষুন্ন হন। তাছাড়া, সাধারণ মানুষের আইন জানা থাকে না। আইন মেনে চলার অনীহা সবসময়ই মানুষের মাঝে কাজ করে। এসব কারণে অনেক সময় সেবা প্রদানে প্রতিবন্ধকতা তৈরী হয়।’

রাজবাড়ী সদর উপজেলা ভূমি অফিসসহ বেশ কয়েকটি ইউনিয়ন ভূমি অফিস ঘুরে এসিল্যান্ড আরিফুর রহমানের কথার সত্যতা মিলেছে। বর্তমানে ভূমি অফিসের কাজের স্বচ্ছতায় সন্তোষ প্রকাশ করেছেন বেশিরভাগ সেবা গ্রহীতারা। 

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর