,

রাজবাড়ী পৌরসভার মেয়র পদে নির্বাচনী গণসংযোগে প্রয়াত বিএনপি নেতা অ্যাড. খালেকের পুত্র পাভেল

News

 রাজবাড়ী : ‘যুবরা লড়বে-আধুনিক পৌরসভা গড়বে’-স্লোগানকে সামনে রেখে রাজবাড়ী পৌরসভার মেয়র পদে নির্বাচনী গণসংযোগে নেমেছেন প্রয়াত বিএনপি নেতা অ্যাডভোকেট এম.এ খালেকের জ্যেষ্ঠ পুত্র ও জেলা ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এম.এ খালেদ পাভেল।

বৃহস্পতিবার (১০ ডিসেম্বর) বিকেলে তিনি রাজবাড়ী বাজারের রেলওয়ে স্টেশন জামে মসজিদ প্রাঙ্গণ থেকে দোয়া-মোনাজাতের মধ্য দিয়ে গণসংযোগ ও নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেন।

এরপর পর্যায়ক্রমে পাট বাজার মোড়, কাদেরীয়া মার্কেট, হকার্স মার্কেট, ফল বাজার, চাউল বাজার, পান বাজার, সবজি বাজার, পালপট্টি, হাজী মার্কেটসহ বাজারের অন্যান্য মার্কেট ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের পর ১নং রেলগেট ও প্রধান সড়ক-প্রেসক্লাব এলাকা হয়ে জেলা বিএনপি কার্যালয় প্রদক্ষিণ করে রেলওয়ে স্টেশন রোডের অ্যাডভোকেট এম.এ খালেকের চেম্বারে গিয়ে সমাপ্ত হয়।

এ সময় জেলা বিএনপির উপদেষ্টামন্ডলীর সাবেক সদস্য মাহবুব চৌধুরী দুলাল, সাবেক দপ্তর সম্পাদক ও বর্তমান আহ্বায়ক কমিটির সদস্য খন্দকার নুরুল নেওয়াজ, সাবেক যুগ্ম সম্পাদক ও বর্তমান আহ্বায়ক কমিটির সদস্য গোলাম কাশেম, সাবেক তথ্য সম্পাদক জিয়াউল হাসান আরিফ, বিএনপি নেতা মো. মোস্তফা, গোবিন্দ ঘোষ, মো. বাবলা, জেলা যুবদলের সাবেক সহ-সভাপতি মাসুদুর রহমান লাল, নজরুল ইসলাম, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের ১নং যুগ্ম-সম্পাদক আব্দুল মালেক, জেলা ওলামা দলের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মো. মোস্তফা, জেলা শ্রমিক দলের সাবেক সহ-সভাপতি শাহ্ মো. ফারুক, জেলা ছাত্রদলের সাবেক যুগ্ম-আহ্বায়ক মশিউর রহমান বকুল, আ. রব, আ. জলিল, নাদের মন্ডলসহ প্রয়াত অ্যাডভোকেট এম.এ খালেকের অনুসারী ও শুভাকাঙ্খী বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের দেড় শতাধিক নেতাকর্মীরা এই গণসংযোগে অংশগ্রহণ করেন।

গণসংযোগকালে এম.এ খালেদ পাভেল পৌর মেয়র প্রার্থী হিসেবে দল-মত, শ্রেণী-পেশা নির্বিশেষে সকলের দোয়া ও সমর্থন কামনা করার পাশাপাশি হ্যান্ডবিল ও লিফলেট বিতরণ করেন। শিক্ষানবীশ তরুণ আইনজীবী এম.এ খালেদ পাভেল রাজবাড়ী জেলা ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদকের পাশাপাশি জাতীয়তাবাদী আইন ছাত্র ফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি, জেলা বিএনপির সাবেক সদস্য, যুক্তরাজ্য ছাত্রদলের সাবেক সহ-সভাপতি, ‘বাংলাদেশী স্টুডেন্টস ইউনিয়ন ইউকে’র সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি এবং আসন্ন রাজবাড়ী পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে বিএনপির অন্যতম দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী।

এছাড়াও তিনি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘ভলান্টিয়ার ফর রাজবাড়ী’র প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান এবং রাজবাড়ী জেলার সর্বপ্রথম অনলাইন নিউজ পোর্টাল ‘রাজবাড়ী নিউজ টুয়েন্টি ফোর ডট কম’-এরও প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান।

পৌর মেয়র পদে নির্বাচনে অংশগ্রহণের ব্যাপারে এম.এ খালেদ পাভেল বলেন, আমার বাবা মরহুম অ্যাডভোকেট এম.এ খালেক প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে আমৃত্যু বিএনপির রাজনীতির পাশাপাশি সারা জীবন মানুষের জন্য নিবেদিতভাবে কাজ করে গেছেন। তিনি জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের রাজবাড়ী জেলা শাখার প্রতিষ্ঠাতা আহ্বায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি বিভিন্ন সময়ে সর্বোচ্চ ঝুঁকি নিয়ে আমৃত্যু রাজবাড়ী জেলা বিএনপিকে শক্তিশালী করতে সক্রিয় ছিলেন। ২০১৪ সালে রাজবাড়ী সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে মানুষের জন্য কাজ করেছেন। সুদীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে রাজবাড়ী জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকসহ দলের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি দুই দফায় জেলা বার অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক, কেন্দ্রীয় সমবায় ব্যাংক লিঃ এর চেয়ারম্যান ছিলেন।

বিএনপির দলীয় প্রার্থী হিসেবে দুইবার রাজবাড়ী-১ আসনের সংসদ সদস্য পদে এবং দুইবার সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করেছেন। কোন বারই তিনি রাজবাড়ী পৌর এলাকার মধ্যে হারেননি; প্রতিবারই তিনি পৌর এলাকার সর্বস্তরের মানুষের ভালোবাসার বহিঃপ্রকাশ হিসেবে সর্বোচ্চ ভোট পেয়েছেন। ওয়ান ইলেভেনের দুঃসময়ে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার প্রতি অনুগত থেকে তার পক্ষে অবস্থান নিয়ে দলীয় কর্মকান্ডের নেতৃত্ব দিয়ে জেলা বিএনপিকে সংগঠিত রাখেন। কখনোই তিনি দলের সিদ্ধান্তের বাইরে যাননি, এ জন্যই ২০১৯ সালের সর্বশেষ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে জোরালো সম্ভাবনা ও সুযোগ থাকা সত্ত্বেও তিনি দলের সিদ্ধান্তের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে ওই নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেননি।

এছাড়াও তিনি অত্যন্ত ধর্মভীরু ছিলেন এবং একাধিকবার পবিত্র হজ্বব্রত ও ওমরা হজ্ব পালন করেন। ওয়াজ মাহফিল আয়োজনে পৃষ্ঠপোষকতা, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নে অগ্রণী ভূমিকা রাখাসহ আলেম-ওলামাদের অত্যন্ত প্রিয়ভাজন ছিলেন। উত্তরসুরী পুত্র হিসেবে তার অসমাপ্ত কাজগুলোর পাশাপাশি সাধারণ মানুষ ও রাজবাড়ীবাসীর জন্য লালিত স্বপ্ন বাস্তবায়নের জন্য দলীয় নেতাকর্মী ও শুভাকাঙ্খীদের অনুরোধ-পরামর্শে পৌর মেয়র পদে নির্বাচনে অংশগ্রহণের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আমি দলের কাছে মনোনয়ন চাইবো। আশা করি, দল আমার ব্যাপারে ইতিবাচক সিদ্ধান্তই নিবে। আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি, দলীয় মনোনয়ন পেলে শ্রদ্ধেয় নেতাকর্মীরা আমার পিতার প্রতি তাদের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসার স্থান থেকে সমস্ত ভেদাভেদ ভুলে আমার পক্ষে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে আমার জন্য বিজয় ছিনিয়ে আনতে সর্বোচ্চ ভূমিকা রাখবেন।

নির্বাচিত হলে দল-মত নির্বিশেষে সকলের সহযোগীতা ও পরামর্শ নিয়ে বর্তমান যুগের সাথে তাল মিলিয়ে চলার মতো আধুনিক পৌরসভা গড়ে তুলতে সরকারি সহায়তার পাশাপাশি দেশী-বিদেশী সংস্থার সহযোগিতায় রাজবাড়ী পৌরসভাকে সারা দেশের মধ্যে একটি অত্যাধুনিক পৌরসভা উপহার দিবো।

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর