রাজবাড়ীতে ট্রেনে দিনমজুর কন্যা মর্জিনার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধারের ৩মাস পর তার মোবাইল সহ এক যুবক আটক

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ৯:২৩ পূর্বাহ্ণ ,৬ জুন, ২০১৪ | আপডেট: ৯:২৪ পূর্বাহ্ণ ,৬ জুন, ২০১৪
পিকচার

রবিউল ইসলাম : গত ১লা মার্চ রাজবাড়ী জেলার পাংশা উপজেলার পাংশা রেল ষ্টেশন থেকে দৌলতদিয়া-খুলনাগামী নঁকশীকাথা মেইল ট্রেনের ১ম শ্রেণীর বগী থেকে এইচ.এস.সি পরীক্ষার্থী দিনমজুর কন্যা মর্জিনার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধারের ৩মাস পরে নিহত মর্জিনার মোবাইল ফোন সহ মো. আনোয়ার হোসেন নামে এক যুবক কে আটক করেছে রেলওয়ে (জিআরপি) থানা পুলিশ।

আটককৃত আনোয়ার খানঞ্জন ইউনিয়নের খোসবাড়ি এলাকার মৃত হারেজ আলীর ছেলে।

জিআরপি থানার এএস আই বাবন মিয়া বাদি হয়ে গত ১ মার্চ একটি অপমৃত্যু মামলা দ্বায়ের করেন।

নিহত মর্জিনার মা-বাবার কান্নায় আকাশ ভারী হয়ে উঠলেও পুলিশের টনক নরেনি। পুলিশের বক্তব্য, নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে কোন অভিযোগ দ্বায়ের না করায় এ ব্যপারে তেমন কোন পদক্ষেপ নেওয়া যায়নি।

এ ব্যাপারে জিআরপি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ মনিরুজ্জামান জানান, আজ ৬ জুন শুক্রবার ভোর সাড়ে ৪টার দিকে আসামীর বাড়িতে অভিযান চালিয়ে আনোয়ার হোসেনকে মর্জিনার মোবাইল ফোন সহ তাকে আটক করা হয়।

তিনি আরো জানান, মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়েছে, এ ঘটনায় আরো কারা জরিত তা খুব তারাতারি জানা যাবে। আসামী সনাক্তকরণের প্রক্রিয়া চলছে, সনাক্ত করা গেলে শীগ্রই গ্রেফতার করা হবে।

মর্জিনার পরিবারের পক্ষ থেকে এ হত্যার ব্যপারে স্বামীর পরিবারকে দায়ী করলেও এ বিষয়ে তেমন কোন অগ্রগতি লক্ষ্যকরা যাচ্ছিলোনা।

নিহত মর্জিনার স্বামী ঢাকায় চাকুরিরত পুলিশ কনোষ্টেবল মোঃ মামুন মোল্লা।

উল্লেখ থাকে যে, রাজবাড়ী জেলা সদরের মিজানপুর ইউনিয়নের গঙ্গাপ্রসাদপুর গ্রামের এইচ.এস.সি পরীক্ষার্থী মর্জিনা গত ১মার্চ সকাল ১০টায় তার নিজ বাড়ী থেকে বের হলেও সে আর বাড়ীতে ফেরে নি। ফিরেছে তার নিথর নিস্তব্ধ মৃতদেহ। নিহতের পরিবার, সহপাঠি ও এলাকাবাসী এ হত্যা কান্ডের সাথে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি কামনা করেছেন।

পুলিশ আরো জানায় গ্রেফতারকৃত আনোয়ার হোসেনের কাছে আরো কিছু তথ্য পাওয়া গছে তদন্তের সার্থে এ বিষয়ে আর কিছুই বলেননি তিনি।

গোপন সুত্রে জানা গেছে নিহত মর্জিনার ছবি ঐ আটককৃত আসামীর মানিব্যাগে পাওয়া গেছে।

 

আপডেট : শুক্রবার ৬ জুন,২০১৪/ আশিক


এই নিউজটি 1162 বার পড়া হয়েছে
[fbcomments"]