রাজবাড়ীর বারলাহুরিয়ায় পূর্ব শক্রতায় বিষ প্রয়োগে শতাধিক মুরগী হত্যা

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ৭:২২ পূর্বাহ্ণ ,২৫ জুন, ২০১৪ | আপডেট: ৭:২২ পূর্বাহ্ণ ,২৫ জুন, ২০১৪
পিকচার

স্টাফ রিপোর্টার : রাজবাড়ী সদর উপজেলার রামকান্তপুর ইউনিয়নের বারলাহুরিয়া গ্রামে গত ২৩ জুন রাত তিনটার দিকে একটি লেয়ার মুরগীর ফার্মে পূর্ব শক্রতার জেরে বিষ প্রয়োগ করে প্রায় শতাধিক মুরগী হত্যা করেছে প্রতিপক্ষের লোকজন।
এ ঘটনায় ফার্মের মালিক রমজান আলী শেখ(৩০) বাদী হয়ে গতকাল ২৪ জুন ৪জনের নাম উল্লে¬খ করে রাজবাড়ী থানায় একটি এজাহার দায়ের করলে বিষয়টি সত্যতা যাচাইয়ের জন্য এএসআই খোন্দকার রমজান আলীকে তদন্ত করার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন সদর থানার পুলিশ পরিদর্শক আঃ খালেক। এছাড়াও মৃত মুরগী আলামত হিসেবে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার জন্য ঢাকায় প্রেরন করেছে সদর উপজেলা প্রাণি সম্পদ অধিদপ্তর।
বারলাহুরিয়া গ্রামের আইয়ুব আলীর ছেলে ফার্ম মালিক রমজান আলী শেখ জানায়, একই গ্রামের মমিন সরদার(৬০) ও ছেলে ইকরাম সরদার(৩০), আকবর মাঝির ছেলে কামাল মাঝি(২৫) ও কৈডাঙ্গা গ্রামের মৃত আইজুদ্দিনের ছেলে আকবর মাঝি (৬০)দের সাথে তার পরিবারের জমিজমা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। এ বিরোধের জেরে উল্লে¬খিতরা তাদেরকে ক্ষতিসাধন করার জন্য চেষ্টা করে আসছিল। গত ২৩ জুন রাত ৩টার দিকে উল্লে¬খিতরা তার বাড়ীর মধ্যে লেয়ার মুরগীর ফার্মে পানির পিয়ালায় বিষ মিশ্রিত পানি ঢেলে দেয়। ওই বিষ মিশ্রিত পানি খেয়ে মুরগীগুলো চেচামেচি করে উঠলে বাড়ীর লোকজনের ঘুম ভেঙে যায়। এ সময় তারা ঘুম থেকে জেগে উঠলে উল্লে¬খিতরা ফার্মের মধ্যে থেকে পালিয়ে চলে যায়।
সে আরো জানায়, তার ফার্মে ১৫০০টি লেয়ার মুরগী ছিল। বিষ মিশ্রিত পানি খেয়ে মুরগীগুলো ছটফট করে মারা যেতে থাকলে তিনি ও পরিবারের লোকজন দ্রুত পানির পেয়ালা গুলো ফার্মের বাইরে ফেলে দেন। তারপরও প্রায় ১০০টি মুরগী মারা যায়। তাতে প্রায় ৩০হাজার টাকার ক্ষতি সাধন হয়। পরে সকালে বিষ প্রয়োগে মুরগী মারা যাওয়ার খবর শুনে স্থানীয় লোকজন ওই বাড়ীতে ভিড় করে।
এ ঘটনার পর ফার্মের মালিক আলামত রাজবাড়ী সদর উপজেলা প্রাণি সম্পদ অধিদপ্তরে নিয়ে আসলে তা পরীক্ষা নিরীক্ষা করানোর জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়। এছাড়াও থানায় এ ব্যাপারে লিখিত এজাহার করলে পুলিশ গতকাল ২৪ জুন রাতে ঘটনাস্থলে পরিদর্শন করেন।

 

 

আপডেট : বুধবার ২৫ জুন,২০১৪/ আশিক


এই নিউজটি 2170 বার পড়া হয়েছে

Comments

comments