রাজবাড়ীতে ইমাম-মুয়াজ্জিন কল্যাণ ট্রাস্টের আওতায় জেলা পর্যায়ের ওরিয়েন্টন সম্মেলন অনুষ্ঠিত

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ৪:১২ পূর্বাহ্ণ ,১ জুলাই, ২০১৪ | আপডেট: ৪:২৪ পূর্বাহ্ণ ,১ জুলাই, ২০১৪
পিকচার

স্টাফ রিপোর্টার : রাজবাড়ী জেলা ‘ইমাম-মুয়াজ্জিন কল্যাণ ট্রাস্টের আওতায় জেলা পর্যায়ের সম্মেলনে জেলা প্রশাসক মোঃ রফিকুল ইসলাম খান সকলকে রোজার প্রকৃত তাৎপর্য উপলদ্ধি করার আহবান জানিয়ে বলেছেন, রোজা রাখলে গোনাহ্ মাফ হয়। রহমতের এ মাসে সংযমী হতে হবে। তাকওয়া অর্জন করতে হবে। যাকাত দিতে হবে। মনে রাখতে হবে, শান্তির ধর্ম ইসলাম কোন বৈষম্য সাপোর্ট করে না। আলেম সমাজ সমাজের এবং ইসলামের নেতৃত্ব দিচ্ছেন। ইসলামের স্পিডটাকে তারাই লালন করেন। সে জন্য তাদেরকে সহি হতে হবে।
গতকাল ৩০ জুন দুপুরে তিনি ইসলামিক ফাউন্ডেশনের রাজবাড়ী জেলা কার্যালয়ের উদ্যোগে ‘ইমাম-মুয়াজ্জিন কল্যাণ ট্রাস্টের জেলা পর্যায়ের ওরিয়েন্টেশন কোর্স/সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
ইসলামিক ফাউন্ডেশনের রাজবাড়ী জেলা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মোঃ আব্দুল হামিদ খানের সভাপতিত্বে সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার দেওয়ান মাহবুবুর রহমান। অন্যান্যের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন জেলা ইমাম-মুয়াজ্জিন কল্যাণ ট্রাস্ট ও জেলা ইমাম কমিটির সভাপতি মাওলানা মোঃ নুরুল আলম, জেলা ইমাম কমিটির সাধারণ সম্পাদক হাফেজ মাওলানা মোঃ ওলিউর রহমান ও যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মোঃ সাঈদ আহম্মেদ প্রমুখ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন ইসলামিক ফাউন্ডেশনের রাজবাড়ী জেলা কার্যালয়ের বিক্রয় সহকারী মোঃ আলী আকবর।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক মোঃ রফিকুল ইসলাম খান আরো বলেন, মানবতা বিরোধী অপরাধের বিচারকে কেন্দ্র করে অতীতের মতো ভবিষ্যতেও যেকোন অনাকাঙ্খিত পরিস্থিতি এড়াতে রাজবাড়ীর আলেম সমাজকে সজাগ থাকতে হবে। তবে আমি শুনে খুশী হয়েছি যে, আগের ক্রাইসিসের সময় রাজবাড়ীতে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। এখানে ৪০ জনের বেশী আলেম আছেন। শুনেছি ৪০জন আলেম একত্রে থাকলে তাদের মধ্যে নাকি একজন আল্লাহ্র ওলি থাকেন। আমি আপনাদের সুখ-শান্তি, রাজবাড়ীবাসীর জন্য সুখ-শান্তি কামনা করছি। আপনারা জেনে খুশী হবেন, ইমাম-মুয়াজ্জিন কল্যাণ ট্রাস্টের জন্য সরকার ৩৬ কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছে। সেই টাকার লভ্যাংশের ২৫ শতাংশ দিয়ে আপনাদের সুদমুক্ত ঋণ/অনুদান দেয়া হবে। আপনাদের মাসিক ১০ টাকা করে যে চাঁদা ধরা আছে-তা নিয়মিত পরিশোধ করবেন।
সভাপতির বক্তব্যে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের রাজবাড়ী জেলা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মোঃ আব্দুল হামিদ খান বলেন, ইসলামিক ফাউন্ডেশন মাদক, জঙ্গীবাদ, বাল্য বিয়ে নিরোধের লক্ষে কাজ করছে। যাকাত সংগ্রহ করে বিতরণ, অসমর্থ্য ইমামদের সহযোগিতা, স্বল্প মূল্যে ইসলামী বই-প্রকাশনা বিক্রি, বিভিন্ন পর্যায়ে ইসলামী প্রতিযোগিতা আয়োজন, মসজিদ ভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম, প্রি-প্রাইমারী ও ১বছর মেয়াদী কোরআন শিক্ষাসহ বিভিন্ন কর্মকান্ড বাস্তবায়ন করছে। জেলা প্রশাসনের কাজে সবসময়ে আমাদের সর্বাত্মক সহযোগিতা পাবেন। আমরা আশা করছি, আপনিও আমাদেরকে সহযোগিতা করবেন।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার দেওয়ান মাহবুবুর রহমান বলেন, ইসলামের নামে অপপ্রচার ও ধবংসাত্মক কর্মকান্ড করা হচ্ছে। আমরা এটা চাই না। এ ধরনের কর্মকান্ডে ইসলাম ক্ষতিগ্রস্থ হয়। জঙ্গী তৎপরতা বা এ ধরণের অপরাধ যদি থেকে থাকে সে ব্যাপারে আপনারা যথাযথ ভূমিকা পালন করবেন।
জেলা ইমাম-মুয়াজ্জিন কল্যাণ ট্রাস্ট ও জেলা ইমাম কমিটির সভাপতি মাওলানা মোঃ নুরুল আলম বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ইসলামিক ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠা করেছিলেন বলেই এটি এখন ইসলামের খেদমতে ভূমিকা রাখতে পারছে।
আলোচনা সভা শেষে ইমাম-মুয়াজ্জিন কল্যাণ ট্রাস্টের পক্ষ থেকে প্রতি উপজেলার ২জন করে ইমামকে ১২হাজার টাকা করে সুদমুক্ত ঋণ এবং ৩জনকে ৩হাজার টাকা করে অনুদান দেয়া হয়। এ ছাড়াও অনুষ্ঠানে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের রাজবাড়ী জেলা কার্যালয়ের পক্ষ থেকে নবাগত জেলা প্রশাসক মোঃ রফিকুল ইসলাম খানকে ইসলামিক ফাউন্ডেশন কর্তৃক প্রকাশিত কয়েকটি বই উপহার দেয়া হয়।

 

 

 

আপডেট : মঙ্গলবার ১ জুলাই,২০১৪/ আশিক


এই নিউজটি 1133 বার পড়া হয়েছে

Comments

comments