রাজবাড়ী শহর রক্ষা বাঁধ পরিদর্শন করলেন জেলা প্রশাসক ও সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ৭:৪৫ অপরাহ্ণ ,৫ জুলাই, ২০১৪ | আপডেট: ১১:৪২ অপরাহ্ণ ,৫ জুলাই, ২০১৪
পিকচার

রাজবাড়ী নিউজ ২৪.কম: :  রাজবাড়ী শহর রক্ষা বাঁধ পরিদর্শন করলেন রাজবাড়ীর নবাগত জেলা প্রশাসক মোঃ রফিকুল ইসলাম খান এবং রাজবাড়ী সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ্যাড: এম,এ খালেক।

৫ জুলাই শনিবার বেলা সাড়ে ১২ দিকে ভাঙ্গন কবলিত এলাকা সরেজমিনে পরিদর্শন করেন তারা ।

বাঁধ পরিদর্শনের পর পদ্মানদীর ডানতীরে ফরিদপুর-বরিশাল এফসিডি প্রকল্পের (রাজবাড়ী ইউনিট) রাজবাড়ী শহর রক্ষা বাঁধের কিঃমিঃ ৫৭.৬০০ হতে কিঃ মিঃ ৫৭.৭০০=১০০ মিটার অংশ নদী ভাঙ্গনের হাত থেকে রক্ষার জন্য অতি জরুরী ভিত্তিতে অস্থায়ী তীর রক্ষা কাজ বাস্তবায়নের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশনা প্রদানের জন্য পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ে ফ্যাক্স বার্তা প্রেরণ করা হয়।

বর্তমানে বাঁধ থেকে নদীর দুরত্ব আনুমানিক মাত্র ৪০ মিটার। তাছাড়া ভাঙ্গন কবলিত স্থানে একটি বড় আকারের পুকুর এবং বাঁধের বরোপিট থাকায় বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধটি আশংকাজনক অবস্থায় আছে।
নদী ভাঙ্গন অব্যাহত থাকলে অচিরেই বাঁধ নদী গর্ভে বিলীন হওয়ার আশংকা থাকবে। এতে চলতি বর্ষা মৌসুমে রাজবাড়ী জেলার বিস্তীর্ণ এলাকা বন্যা কবলিত হয়ে জনগণের সম্পদ ও জানমালের ব্যাপক ক্ষতিসাধণ হতে পারে। এ অবস্থায় বর্ণিত অতি ঝূকিঁপূর্ণ ১০০ মিটার অংশে জরুরী ভিত্তিতে বালু ভর্তি জিও ব্যাগ দ্বারা অস্থায়ী নদী তীর সংরক্ষণ কাজ বাস্তবায়ন করা জরুরী হয়ে পড়েছে। পানি উন্নয়ন বোর্ডের রাজবাড়ী প ও র বিভাগের তথ্যমতে এ কাজে প্রায় ৮.৫০ লক্ষ টাকা প্রয়োজন হবে ।

রাজবাড়ীর নবাগত জেলা প্রশাসক মোঃ রফিকুল ইসলাম খান বিষয়টি অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে নিয়ে নদী ভাঙ্গন রোধে অত্যন্ত ত্বরিত গতিতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন এবং রাজবাড়ী সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ্যাড: এম,এ খালেক জেলা প্রশাসকের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করে সার্বিক সহযোগীতারকরে যাবেন বলে জানিয়েছেন  । এ সময় বরাট ইউপির চেয়ারম্যান কাজী শামসুদ্দিন, মিজানপুর ইউপির চেয়ারম্যান আতিয়ার রহমান ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মোঃ সোহরাব হোসেন উপস্থিত ছিলেন । 

উল্লেখ্য, সম্প্রতি পদ্মানদীতে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় উজান থেকে আসা পানির স্রোতে রাজবাড়ী সদর উপজেলার লালগোলা নামক স্থানে রাজবাড়ী শহর রক্ষা বাঁধ প্রকল্পের ৩০০ মিটার ভাটিতে গত ০২/৭/২০১৪ তারিখ হতে ব্যাপক আকারে নদী ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। ফলে পদ্মানদীর ডানতীরে ফরিদপুর-বরিশাল এফসিডি প্রকল্পের (রাজবাড়ী ইউনিট) বাঁধের কিঃমিঃ ৫৭.৬০০ হতে কিঃ মিঃ ৫৭.৭০০=১০০ মিটার অংশ নদী ভাঙ্গনের মারাত্মক ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে।

 

 

10487408_926915407325912_5556387857533440971_n

 

 

আপডেট : রবিবার ৬ জুলাই,২০১৪/ ০১:৪২ এএম/ আশিক/স্বপ্ন

 


এই নিউজটি 1444 বার পড়া হয়েছে

Comments

comments