দেশের সবচেয়ে দামি গাড়ি কিনেছি : সাকিব

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ১:১৪ অপরাহ্ণ ,৭ জুলাই, ২০১৪ | আপডেট: ১:১৪ অপরাহ্ণ ,৭ জুলাই, ২০১৪
পিকচার

স্পোর্টস ডেস্ক : তখনও তার চেহারায় বিমানের ক্লান্তি ছাপ। মাথার চুলগুলো এলোমেলো। নিজের মাথার ক্যাপটাও গাড়িতে ফেলে রেখে এসেছেন। হয়তো ভাবতেই পারেননি, তার জন্য আগে থেকেই সাংবাদিকরা অপেক্ষা করছেন।
যাকে নিয়ে এ বর্ণনা দেয়া হলো তিনি বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। বারবার নিয়ম ভাঙা ও অসৌজন্যমূলক আচরণের জন্য যিনি বিতর্কিত। সর্বশেষ বোর্ডকে না জানিয়ে সিপিএল খেলতে গিয়ে তিনি ফের বিতর্কে জড়িয়েছেন জাতীয় দলে না খেলার হুমকি দিয়ে।
তবে বিসিবির ডাকে লন্ডন থেকে তাকে রোববার দেশে ফিরতে হয়েছে। দেশে ফিরেই তিনি জাতীয় দলে না খেলার হুমকির কথা সরাসরি অস্বীকার করেছেন।
লন্ডন থেকে ঢাকায় ফিরে স্টেডিয়ামে উপস্থিত হয়েছিলেন সাকিব। সেখানে তিনি সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন। অহংকারী সাকিবের সেসব কথা থেকে কিছু কথা পাঠকদের সামনে তুলে ধরা হলো।
দুপুর ১টা ৪২ মিনিটে নিজের গাড়ি চালিয়ে একাই বিসিবিতে আসেন সাকিব। সরাসরি চলে যান ক্রিকেট অপারেশন বিভাগে। সেখাকে উপস্থিত সাব্বির খানের সঙ্গে দাঁড়িয়ে থেকেই এক মিনিট কথা বলে বেড়িয়ে আসেন। হাঠাৎ সাকিবকে দেখে চমকে ওঠেন বিসিবির কর্মচারীরা।
কিন্তু কেউ কথা বলেনি সাকিবের সঙ্গে। এ সময় সাকিবকে এড়িয়ে সাব্বির খান চলে যাচ্ছিলেন অন্যদিকে। সাকিবের চোখে তখন অপরাধী ছাপ। এ সময় সাকিব বলেন, কোথায় যান সাব্বির ভাই? দাঁড়ান কথা আছে। থমকে দাঁড়ান সাব্বির খান।’
সাকিবের এমন কথা শুনেই বিসিবির সাত-আট জন কর্মচারী তার চারপাশে দাঁড়িয়ে যান। এ সময় কারো মুখেই কথা ছিল না। শুধু সাকিবের কথাগুলোই শুনছিলেন তারা। বিসিবির এক কর্মচারীকে তিনি চাবি দিয়ে বলেন, দেখতো আমার গাড়িতে ক্যাপ ফেলে এসেছি। ক্যাপটা এনে দাও।
ওহ, চুলগুলোও কাটতে সময় দিলো না বিসিবি। ভাবছিলাম এবার তিন মাস ওয়েস্ট ইন্ডিজ থাকতে পারবো। এবার চুলে ক্যারিবিয়ান ছাঁট দেব, না সেটাও হলো না। না খেলেই চলে আসতে হলো’
ও সাব্বির ভাই কখন থেকে অনুশীলন শুরু হবে? সাব্বির বলেন, ‘সাড়ে তিনটায় অনুশীলন আর ৩টায় রির্পোটিং।’ পাশ থেকে হাসতে হাসতে বিসিবির এক কর্মচারী বলেন, ‘কখন অনুশীলন সেটাও ভুলে গেছেন?’
সাকিব তার উত্তরে বলেন, ‘না আসলে কাগজগুলো তো এখানেই (বিসিবিতে) একটা ব্যাগে রেখে গিয়েছিলাম তাই মনে নেই। তাছাড়া লন্ডন থেকে নেমেই সরাসরি এখানে চলে এলাম। ভাবলাম কখন যে অনুশীলন শুরু হবে? তাই এখনি চলে এসেছি।’
এরপর কিছুটা ব্যঙ্গাত্মক স্বরে বলেন, ‘ও সাব্বির ভাই, আমাকে কি অনুশীলন করতে দেবে বিসিবি?
সাব্বির: কেন দেবে না?
সাকিব: না, ভাবলাম অনুশীলন করতে দেবে কিনা, তাই নতুন গাড়ি নিয়ে এসেছি। আমার গাড়ি দেখেছেন? ওই যে, একেবারে পাশের নতুন গাড়িটা। এটা কিন্তু একেবারেই নতুন। এখন থেকে প্রতিদিন বিসিবিতে একটা করে নতুন গাড়ি নিয়ে আসবো।’
একটু থেমে তিনি বলেন, ‘কাল যদি বিসিবি আমাকে ডাকে, সে প্রস্তুতিও নিয়ে রেখেছি। শাস্তি দেয়ার জন্য বিসিবি আমাকে ডাকলে বাংলাদেশের সবচেয়ে বেশি দামি গাড়ি নিয়ে বিসিবিতে উপস্থিত হব।’ ও সাব্বির ভাই বলাই হয়নি, আমি কিন্ত বাংলাদেশের সবচেয়ে দামি গাড়ি কিনেছি।’
সাব্বির: নিয়ে এসেছেন?
সাকিব: না বিসিবি ডাকলে নিয়ে আসবো।’
এরপর সাকিব চলে যান বিসিবির ভারপ্রাপ্ত প্রধান নির্বাহী কর্মকতা (সিইও) নিজাম উদ্দিন চৌধুরী সুজনের কাছে। তার সঙ্গে বেশ কিছু সময় প্রয়োজনী কথা বলে বাসায় চলে যান তিনি।

 

 

আপডেট : সোমবার ৭ জুলাই,২০১৪/০৬:১৩ পিএম/ আশিক

 


এই নিউজটি 1257 বার পড়া হয়েছে

Comments

comments