বালিয়াকান্দির সোনাপুরে শহীদ মিনার ভাঙ্গার ঘটনায় মামলা হয়নি : এলাকায় ক্ষোভের সৃষ্টি

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ১০:৫০ অপরাহ্ণ ,১৩ জুলাই, ২০১৪ | আপডেট: ১০:৫০ অপরাহ্ণ ,১৩ জুলাই, ২০১৪
পিকচার

স্টাফ রিপোর্টার : বালিয়াকান্দি উপজেলার সোনাপুর বাজারের গত ১১ই জুলাই সকালে ব্যবসায়ী আলাল বিশ্বাসের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভাংচুর করে মালামাল লুট করে জোরপূর্বক দখল করে নেওয়ার অভিযোগে বালিয়াকান্দি থানায় মামলা হয়েছে।

তবে সোনাপুর বাজারে রাতের আধারে সরকারী জায়গায় থাকা শহীদ মিনার ভেঙ্গে ফেলে অবৈধ স্থাপনা নির্মানের ঘটনায় থানায় কোন মামলা না হওয়ায় এলাকার সচেতন মহলে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।
সোনাপুর গ্রামের ইয়াসিন বিশ্বাস ওরফে ইয়াসিন মাষ্টার বাদী হয়ে বালিয়াকান্দি থানায় কালুখালী উপজেলার মাজবাড়ী গ্রামের লাল মিয়ার পুত্র আতিকুল ইসলাম(৩২), মাজবাড়ী গ্রামের হাচেন ফকিরের পুত্র রিপন (৩০)সহ ১০জনকে এজাহারভূক্ত এবং আরো ৭/৮জন অজ্ঞাতনামা আসামী করে মামলা দায়ের করেন। বালিয়াকান্দি থানার মামলা নং-৭, তাং- ১১/৭/২০১৪ইং, ধারাঃ ১৪৩/৪৪৮/৩২৩/৩২৫/৩৮০/৩২৭ দঃ বিঃ দায়ের করেন। থানার এস.আই জাহিদ হোসেন মামলাটি তদন্ত করছেন। মামলার আসামীদের মধ্যে রিপন গ্রেফতার হলেও এ খবর লেখা পর্যন্ত প্রধান আসামী আতিকুলসহ অন্যান্যরা গ্রেফতার হয়নি।

এদিকে গত ১২ই জুলাই রাতে সোনাপুর বাজারের গো-হাটের কাছে সরকারী জায়গায় থাকা শহীদ মিনার দিয়ে ভেঙ্গে ফেলে সেখানে পাকা স্থাপনা নির্মানের কাজ আতিকুল গং। এ ঘটনায় এলাকাবাসী ও সুধীজনদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

ব্যবসায়ীরা জানান, সোনাপুর বাজারের আলাল বিশ্বাসের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভেঙ্গে দখল করার পর মাজবাড়ী গ্রামের আতিকুল ইসলামের নেতৃত্বে নেতৃত্বে একই এলাকার তুলোন, হামু কসাই, জাহাঙ্গীর, জামাল, সাচ্চু, আমজাদ, শাওন সহ ৫০/৬০জন লোক রাতে সরকারী জায়গায় থাকা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার ভেঙ্গে ফেলে। এ খবর জানতে পেরে বালিয়াকান্দি উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ আবুল কালাম আজাদ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
নবাবপুর তহশীলদার(ইনচার্জ) মোঃ জোনাব আলী জানান, উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ আবুল কালাম আজাদ আমাকে অবগত করলে আমি নির্বাহী অফিসার কামরুল হাসানকে অবগত করি।

তহশীলদার(ইনচার্জ) মোঃ জোনাব আলী আরো বলেন, আতিকুল ইসলাম লোকজন নিয়ে শহীদ মিনার ভেঙ্গেছে বলে সত্যতা পাওয়া গেছে। তিনি আরো জানান, এ সব নিয়ে কথা বলার উপায় নেই। আমি সোমবার সকালে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে রিপোর্ট দাখিল করবো।

বালিয়াকান্দি উপজেলা নির্বাহী অফিসার কামরুল হাসান জানান, আমি ঘটনা সম্পর্কে অবগত নই। তবে খতিয়ে দেখে আইননানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

 

 

আপডেট : সোমবার ১৪ জুলাই,২০১৪/ ০৪:৫০ এএম/ আশিক


এই নিউজটি 1269 বার পড়া হয়েছে

Comments

comments