,

উড়াকান্দায় ক্ষতিগ্রস্ত কবরস্থান ও স্কুল রক্ষার কাজ পরিদর্শন করলেন জেলা প্রশাসক

News

স্টাফ রিপোর্টার : রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক মোঃ রফিকুল ইসলাম খান ২২ জুলাই মঙ্গলবার বিকেলে বরাট ইউনিয়নের লালগোলা ও উড়াকান্দা এলাকায় নদী ভাঙনে ক্ষতিগ্রস্ত দেওয়ান বাড়ী কবরস্থান ও উড়াকান্দা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় রক্ষার কাজ পরিদর্শন করেছেন।

পরিদর্শনকালে তিনি তাৎক্ষনিকভাবে নদী ভাঙন ওই এলাকায় হতদরিদ্রদের মধ্যে আর্থিক সহযোগীতা দেওয়ার জন্য একটি তালিকা করেন এবং তালিকাভূক্তদেরকে এক হাজার টাকা করে আর্থিক সহায়তা প্রদান করবেন বলে ঘোষণা করেন। এ সময় কালেক্টরেটের এনডিসি মোঃ জামিরুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, পানি উন্নয়ন বোর্ডের(পাউবো’র) উদাসীনতা ও গাফিলতির কারনে এ বছর লালগোলা এলাকায় কয়েক দিনের পদ্মা নদীর ভাঙ্গনে দেওয়ান বাড়ী কবরস্থান ঝুঁকির মধ্যে পড়ে। পানি উন্নয়ন বোর্ড ভাঙন রোধে ব্যবস্থা গ্রহন না করলে দেওয়ান বাড়ী কবরস্থানটির অধেক নদী গর্ভে বিলীন হয়ে যায়। গত ২১ জুলাই ওই কবর স্থান থেকে একটি লাশ ভেসে উঠা দেখে স্থানীয় বাসিন্দারা কবরস্থানটি রক্ষার উদ্যোগ নেয়। এরই ফলশ্র“তিতে তারা শতাধিক বাঁশ জোগাড় করে স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে কবরস্থানটি পাস ঘেষে বাঁশের বেড়া দেয়।

একই অবস্থা উড়াকান্দা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের। পানি উন্নয়ন বোর্ড ভাঙন রোধে ব্যবস্থা গ্রহন না করায় সদর উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাডঃ এম.এ খালেক উপজেলা পরিষদের অর্থায়নে স্কুলটি রক্ষায় নদীর পাড় ঘেষে বাঁশের পাইলিং ও বেড়া দিয়ে স্কুলটির রক্ষার উদ্যোগ নেন।

২২ জুলাই মঙ্গলবার বিকেলে জেলা প্রশাসক মোঃ রফিকুল ইসলাম খান সদর উপজেলা কর্তৃক স্কুল রক্ষার কাজও পরিদর্শন করেন। এ সময় তিনি বাঁশের পাইলিং ও বেড়ার পাশাপাশি বালির বস্তা ফেলার জন্য মোবাইলে পানি উন্নয়ন বোর্ডকে নির্দেশ দেন। এরআগে মঙ্গলবার দুপুরে সদর উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাডঃ এম.এ খালেক ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার দেওয়ান মাহবুবুর রহমান স্কুল রক্ষার কাজ পরিদর্শন করেন।

 

 

আপডেট : বুধবার ২৩ জুলাই,২০১৪/ ০১:৩১ পিএম/ আশিক

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর