সরকারকে নতি স্বীকারে বাধ্য করার হুঁশিয়ারি দিলেন ফখরুল

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ১২:৩৭ অপরাহ্ণ ,১৬ আগস্ট, ২০১৪ | আপডেট: ১২:৩৭ অপরাহ্ণ ,১৬ আগস্ট, ২০১৪
পিকচার

ঢাকা : সরকার বিরোধী আন্দোলনে সর্বশক্তি প্রয়োগ করে ক্ষমতাসীনদের নতি স্বীকার করতে বাধ্য করা হবে বলে হুঁশিয়ারি করেছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

শনিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাব ভিআইপি লাউঞ্জে ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টি- এনডিপি আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এ হুঁশিয়ারি করেন।

প্রবীণ সাংবাদিক ও সাবেক তথ্যমন্ত্রী আনোয়ার জাহিদের ৬ষ্ঠ মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে ‘জাতীয় সম্প্রচার নীতিমালা ২০১৪-এর বাস্তবায়ন মানে সংবাদপত্রের তথা গণতন্ত্রের কণ্ঠরোধ’ শীর্ষক এই আলোচনা সভায় মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, বাকশাল, জুলুমবাজ ও দানব সরকার জনগণের বুকে চেপে বসেছে। তাই আন্দোলনে সর্বশক্তি প্রয়োগ করে এদের হাত থেকে জনগণকে রক্ষা করতে হবে। আন্দোলনের এমন পরিবেশ সৃষ্টি করতে হবে যাতে সরকার জনগণের কাছে নতি স্বীকার করে ক্ষমতা হস্তান্তর করেন।

শুক্রবার নয়াপল্টনস্থ বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে বেগম খালেদা জিয়ার জন্মদিন উপলক্ষে কেক কাটা অনুষ্ঠান বাধা দিয়ে দলীয় অঙ্গ-সংগঠনের নেতাকর্মীদের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা নির্যাতন করেছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

মির্জা ফখরুল বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার জন্মদিন উপলক্ষে কেক কাটা অনুষ্ঠানে সরকার বাঁধা দিয়ে তারা আবারও প্রমান করলো তারা অবৈধ ও অগণতান্ত্রিক সরকার। তাই তারা ভিতু হয়ে পড়েছে।
সরকারকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, এখনও সময় আছে আপনাদের শুভবুদ্ধির উদায় হোক। জনগণের দাবি মেনে নিয়ে নিরপেক্ষ সরকারের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করে নির্বাচন দিন, অন্যথায় এর ফল আপনাদেরকেই ভোগ করতে হবে।

বিচারবিভাগ ও গণমাধ্যম নিয়ন্ত্রণ করে ক্ষমতাসীনরা সম্পূর্ণভাবে একদলীয় শাসনের পথে হাঁটছে বলে মন্তব্য করেন মির্জা ফখরুল।

জাতীয় সম্প্রচার নীতিমালা প্রসঙ্গে মির্জা আলমগীর বলেন, এই নীতিমালা দেশের ৯০ ভাগ জনগণ প্রত্যাখ্যান করেছে। এমনকি জাতীয় নীতিমালা তৈরী করতে যে কমিটি গঠন করা হয়েছে, সেই কমিটির ব্যক্তিরাও এই নীতিমালাকে প্রত্যাখ্যান করেছেন।

সরকার বিরোধী লড়াই-সংগ্রাম বিএনপি ও ২০ দলীয় জোটের ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য- রাজনৈতিক ব্যক্তিদের এই বক্তব্যে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এই লড়াই বিএনপি ও জোটের ক্ষমতায় যাওয়ার লড়াই নয়। এই লড়াই দেশের জনগণের মৌলিক অধিকার, জনগণের ভোটাধিকার ও গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার লড়াই।

আনোয়ার জাহিদের স্মৃতিচারণ করে বিএনপির এই শীর্ষ নেতা বলেন, গণমাধ্যমে উপর বিদেশি মিডিয়ার আগ্রাসন চলছে। এই আগ্রাসন দমনের জন্য আনোয়ার জাহিদ অনেক আন্দোলন ও সংগ্রাম করেছেন। এবং সরকারিভাবেও তিনি অনেক পদক্ষেপ গ্রহণ করেছিলেন।

এনডিপির চেয়ারম্যান খোন্দকার গোলাম মোর্ত্তাজার সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টির সভাপতি শফিউল আলম প্রধান, জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফা জামাল হায়দার, সংগঠনের মহাসচিব আলমগীর মজুমদার প্রমুখ।

 

 

আপডেট : শনিবার ১৬ আগষ্ট,২০১৪/ ০৬:৩৬ পিএম/ আশিক

 


এই নিউজটি 1140 বার পড়া হয়েছে

Comments

comments

More News from রাজনীতি