খানগঞ্জ ইউপির চেয়ারম্যানসহ ৪জনের বিরুদ্ধে থানায় জিডি

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ৬:৩৬ পূর্বাহ্ণ ,৩১ আগস্ট, ২০১৪ | আপডেট: ৬:৩৬ পূর্বাহ্ণ ,৩১ আগস্ট, ২০১৪
পিকচার

স্টাফ রিপোর্টার : রাজবাড়ী সদর উপজেলার খানগঞ্জ ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মোঃ আবু জাফর খানকে হত্যার হুমকী দেয়ার অভিযোগে খানগঞ্জ ইউপির চেয়ারম্যান ও বিএনপি নেতা মোঃ আতাহার হোসেন তকদীরসহ ৪জনের বিরুদ্ধে গতকাল ৩০শে আগস্ট থানায় ১১৫৩নং জিডি এন্ট্রি হয়েছে।

মোঃ আবু জাফর খানের জিডিতে উল্লেখ করা হয়েছে, গত ২১ ফেব্রুয়ারী-২০১৪ বেলগাছী রেলস্টেশন চত্বরে বিএনপির সন্ত্রাসীরা আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের উপর হামলা চালায়। হামলায় আওয়ামীলীগের ৮জন নেতাকর্মী আহত হয়। তাদের মধ্যে মোঃ আবু জাফর খানও ছিলেন। ঐ ঘটনায় রাজবাড়ী সদর থানায় একটি মামলা হয় এবং সেই মামলায় চার্জশীটও হয়েছে। এ ছাড়াও ঐ আসামীদের বিরুদ্ধে চলমান আরেকটি চাঁদাবাজী মামলায় মোঃ আবু জাফর খান সাক্ষ্য প্রদান করেন। এতে বিএনপির নেতাকর্মীরা ক্ষুদ্ধ হয় এবং মোঃ আবু জাফর খানসহ আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের চরের সর্বহারা নেপাল বাহিনীর লোকজন দিয়ে হত্যা করার ষড়যন্ত্র করতে থাকে। ১০/১২দিন পূর্বে মোঃ আবু জাফর খান বেলগাছী দাদপুর হাটে বাজার করতে এলে চেয়ারম্যান আতাহার হোসেন তকদীর এবং স্থানীয় বাজার বণিক সমিতির সভাপতি খালেক প্রামানিক, সদস্য আলম এবং আফড়া সিনিয়র দাখিল মাদ্রাসার প্রভাষক ইকবাল তাকে জোর করে খালেক প্রামানিকের ঘরে নিয়ে যায়। তারা জাফরকে বলেন, ‘তুই আমাদের বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে সাক্ষ্য দিয়েছিস। কোর্টে সাক্ষ্য দিতে পারবি না। কোর্টে সাক্ষী দিলে তোর ২ ছেলে ও তোকে হত্যা করা হবে।’ এ সময় চেয়ারম্যান তকদীর হাতে থাকা টেনিস বল সাদৃশ্য একটি জিনিস দেখায়, বলে ‘এটা গ্রেনেড। তোর দলের নেতাকর্মীদের একজনকেও বাঁচিয়ে রাখব না। ২১ আগস্টের বোমা হামলার কথা ভুলে গেছিস। আমি এক সময় শিবিরের নেতা ছিলাম। এ সব বোমা আমি নিজেই তৈরী করি। কথা যেন মনে থাকে, আমি যেভাবে বললাম সেভাবে কাজ করবি।’ এ ছাড়াও চেয়ারম্যান তকদীরসহ অন্যান্যরা আবু জাফরকে ভয় দেখিয়ে তার মোবাইল ফোন দিয়ে বিভিন্ন জায়গায় চাঁদা দাবী করায়। পরে কথার বাইরে গেলে তাকে চাঁদাবাজী মামলায় ফাঁসিয়ে দেয়ার হুমকি দেয়া হয়।
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে রাজবাড়ী সদর থানার ডিউটি অফিসার এএসআই মোঃ হাসান মিয়া জিডির সত্যতা স্বীকার করে বলেন, অভিযোগ তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে খানগঞ্জ ইউপির চেয়ারম্যান মোঃ আতাহার হোসেন তকদীর বলেন, কিছুদিন পূর্বে বেলগাছী দাদপুর বাজারের সংখ্যালঘু পিন্টু প্রামানিকের কম্পিউটারের দোকানে চুরি হয়। পরবর্তীতে আবু জাফর ১৪হাজার টাকা নিয়ে চোরাই মালামালগুলো ফেরত দেয়। সেই ব্যাপারে পিন্টু স্থানীয় বণিক সমিতিতে লিখিত অভিযোগ করে। বণিক সমিতি বিষয়টি আমাকে অবহিত করলে আমি ২দফা তাকে নোটিশ দিলেও জাফর ইউনিয়ন পরিষদে হাজির হয়নি। কিছুদিন পূর্বে দাদপুর গ্রামের সরোয়ার হোসেনের স্যালো মেশিনের ইঞ্জিন চুরি হলে জাফর তার কাছ থেকে ৫ হাজার টাকা নিয়ে সেটি ফেরত দেয়। সে ব্যাপারে সরোয়ারও অভিযোগ করে। এ ছাড়াও সাম্প্রতিককালে দাদপুর বাজারের অন্ততঃ ৫টি দোকানে চুরি হয়। যার সঙ্গে জাফরের সম্পৃক্ততা রয়েছে বলে সবার ধারণা। আবু জাফর গং আত্মরক্ষার পাশাপাশি আমাদেরকে ফাঁসানোর জন্য পরিকল্পিতভাবে সম্পূর্ণ মিথ্যা অভিযোগে জিডিটি করায়। শুধু এই জিডিই নয়, জাফর গং অভিযোগকারী কম্পিউটার দোকানী পিন্টু প্রামানিককে এমন ভয় দেখিয়েছে যে, নিরূপায় হয়ে সে আত্মগোপন করে রয়েছে।

 

 

আপডেট : রবিবার ৩১ আগষ্ট,২০১৪/ ১২:৩৩ পিএম/ আশিক

 


এই নিউজটি 1247 বার পড়া হয়েছে

Comments

comments