দৌলতদিয়া পতিতাপল্লীতে রিপন হত্যাকান্ডের ঘটনায় গ্রেপ্তারকৃত ২আসামীর রিমান্ড আবেদন শুনানীর অপেক্ষায়

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ২:১৩ পূর্বাহ্ণ ,১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৪ | আপডেট: ২:১৩ পূর্বাহ্ণ ,১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৪
পিকচার

নিজস্ব প্র্রতিবেদক : রাজবাড়ী জেলার দৌলতদিয়া পতিতাপল্লীতে ঢাকা সাউথ ইষ্ট বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের শেষ বর্ষের ছাত্র সাইফুল ইসলাম রিপন(২৪) হত্যা মামলায় গ্রেফতারকৃত শহিদ শেখ ওরফে সোহেল(২৭)কে গতকাল ১১ই সেপ্টেম্বর আদালত জেল হাজতে প্রেরন করেছে।

গ্রেফতারকৃত শহিদ শেখ ওরফে সোহেল উত্তর দৌলতদিয়া সামসু মাষ্টারের পাড়ার হালিম শেখের ছেলে। গুলিতে নিহত রিপন দৌলতদিয়া বাজার এলাকার মোঃ মোহন মন্ডলের ছেলে।

এনিয়ে এ হত্যা মামলায় গ্রেফতারের সংখ্যা দাড়িয়েছে ২জনে। এরআগে গত ৯ই সেপ্টেম্বর সুমন শেখ(২৭) নামের এক এজাহারভূক্ত আসামীকে পুলিশ গ্রেফতার করে। গত ৭ই সেপ্টেম্বর রাত পৌনে ৩টার দিকে দৌলতদিয়া পতিতাপল্লীর কল্পনা বাড়ীওয়ালীর বাড়ীর দ্বিতীয় গেটের সামনে গলির মধ্যে রিপনকে বুকে, মাথায় ও থুথনিতে আগ্নেয়াস্ত্র দিয়ে গুলি করে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। এ সময় সন্ত্রাসীদের গুলিতে আহত হয় রিপনের বন্ধু ফরিদ শেখ(২৪)।

এ ঘটনায় নিহত কলেজ ছাত্র রিপনের মামা রাজবাড়ী সদর উপজেলার কামালদিয়াকান্দী গ্রামের জোনাব আলীর ছেলে খলিল মোওল বাদী হয়ে ৫জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত ৮/১০জনকে আসামীকে গোয়ালন্দ থানায় ৩২৬/৩০২/৩৪ দঃ বিঃ ধারায় হত্যা মামলা দায়ের করে। গোয়ালন্দ থানার মামলা নং-৬। মামলার আসামীরা হলো ঃ গোয়ালন্দ উপজেলার ফেলু মোল্লা পাড়ার হোসেন পত্তনদারের ছেলে জামাল পত্তনদার(৩২), শাহ ব্যাপারী পাড়ার মৃত সিদ্দিক শেখের ছেলে ইয়াসিন শেখ(৩০), উত্তর দৌলতদিয়া সামসু মাষ্টারের পাড়ার হালিম শেখের ছেলে সহিদ শেখ ওরফে সোহেল (২৭), পোড়াভিটার গ্রামের মমিন দালালের ছেলে সুমন শেখ(২৭) ও কুষ্টিয়া জেলার সদরের হারুন (৩২), পিতা-অজ্ঞাত।

মামলার এজাহারে রিপনের মামা খলিল মোন্ডল উল্লেখ করেন, রিপন গত ৬ই সেপ্টেম্বর বিকেলে ঢাকা থেকে বাড়ীতে আসে। রাতের খাবার শেষে সে তার বন্ধু সোরাফ মন্ডলের পাড়ার কাদের শেখের ছেলে ফরিদ শেখের সাথে রাত সোয়া ৮টার দিকে বাড়ী থেকে বের হয়ে যায়। রাত সোয়া ৩টার দিকে তার কাছে সংবাদ আসে উল্লেখিত সন্ত্রাসীরা প্রলোভন দিয়ে পতিতাপল্লীর কল্পনা বাড়ীওয়ালীর বাড়ীর ২য় গেইটের সামনে গলির উপরে রাত পৌনে ৩টার দিকে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে আগ্নেয়াস্ত্র ঠেকিয়ে মাথায়, বুকে ও থুথনিতে গুলি করে রিপনকে ঘটনাস্থলেই হত্যা করে। এছাড়াও তারা রিপনের বন্ধু ফরিদ শেখকে হত্যার উদ্দেশ্যে মুখের মধ্যে গুলি করলে ৭/৮টি দাঁত ও মাড়ি উড়ে যায় এবং তার পায়ে গুলি করলে মারাত্মকভাবে জখম হয়ে সে দৌড়ে প্রাণ রক্ষা করে। পরে তাকে আশংকাজনক অবস্থায় ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজে ভর্তি করা হয়। পরবর্তীতে তাকে ঢাকা ডেন্টাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

গোয়ালন্দ থানার এস.আই কফিল উদ্দিন জানান, গ্রেফতারকৃত এজাহারভূক্ত আসামী শহিদ ও সুমনসহ উল্লেখিত আসামীরা রিপনকে প্রলোভন দেখিয়ে দৌলতদিয়া পতিতাপল্লীর কল্পনা বাড়ীওয়ালীর বাড়ীর ২য় গেটের সামনে গলির উপর নিয়ে পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী গুলি করে হত্যা করে। শহিদ ও সুমনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এছাড়াও ৭দিনের রিমান্ড আবেদন করে উভয়কেই আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। আদালত আগামী ১৪ই সেপ্টেম্বর গ্রেফতারকৃত শহিদ ও ১৭ই সেপ্টেম্বর সুমন শেখের রিমান্ড শুনানীর দিন ধার্য্য করেছেন। রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে এ হত্যার কান্ডের সাথে আর কারা জড়িত ছিল তা বেরিয়ে আসবে।

 

 

আপডেট : শুক্রবার সেপ্টেম্বর ১২,২০১৪/ ০৮:১২ এএম/ আশিক

 

 


এই নিউজটি 1218 বার পড়া হয়েছে

Comments

comments