,

রাজবাড়ীতে জবির ছাত্র মাহমুদুল হত্যার ঘটনায় দম্পতি গ্রেপ্তার : আদালতে স্বীকারোক্তি

রাজবাড়ী নিউজ২৪.কম : রাজবাড়ী সদর উপজেলার শহীদ ওহাবপুর ইউনিয়নের মধুপুর গ্রামে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের মাস্টার্স শেষ বর্ষের ছাত্র মাহমুদুল হাসানকে হত্যার ঘটনায় জড়িত সন্দেহে গত বুধবার সন্ধ্যায় এক দম্পতিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

গ্রেপ্তারকৃত দম্পতি হলেন, নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের কান্দাপাড়া গ্রামের আবু জাহিদুজ্জামানের ছেলে শরিফ মিয়া ও তাঁর স্ত্রী পারভীন আক্তার। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে তাঁদেরকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দিতে ওই হত্যার ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন পারভীন আক্তার ।

জানা গেছে, গ্রেপ্তারকৃত দম্পতি শরিফ ও পারভীনের ছেলে ইয়াছিনকে তাদের রাজধানীর ঢাকার বাসায় প্রাইভেট পড়াতেন নিহত মাহমুদুল হাসান। সেই সূত্রে দুই সন্তানের জননী পারভীন আক্তারের সঙ্গে মাহমুদুলের অনৈতিক সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এ নিয়ে শরিফ ও তার স্ত্রী পারভীনের মধ্যে তুমুল বিরোধের সৃষ্টি হয়। বিরোধের একপর্যায়ে পারভীন তার বাবার বাড়ি চলে এসে তাঁর স্বামী শরিফের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করেন। এ অবস্থায় তাঁদের মধ্যে ডিভোর্স হয়। তবে সম্প্রতি উভয়ের মধ্যে আবার আপস মীমাংসা হলেও তাদের পথের কাঁটা হয়ে দাঁড়ায় কলেজছাত্র মাহমুদুল। সে কারণে পারভীন কয়েকজনকে দিয়ে কৌশলে মাহমুদুলকে রাজবাড়ীতে এনে নেশাজাতীয় দ্রব্য খাইয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে।

নিহত মাহমুদুল নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার সুন্দরখাতা গ্রামের ডা. আবুল হোসেনের ছেলে।এ ঘটনায় ২১ জুলাই রাজবাড়ী সদর উপজেলার খানখানাপুর পুলিশ তদন্তকেন্দ্রের এএসআই জাহিদুল ইসলাম বাদী হয়ে রাজবাড়ী থানায় মামলা করেন।

ওই মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা খানখানাপুর পুলিশ তদন্তকেন্দ্রের এসআই রঞ্জন কুমার বিশ্বাস বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শরীফ ও তাঁর স্ত্রী পারভীনকে রাজবাড়ী পৌরসভার সামনে থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।
বৃহস্পতিবার বিকেলে তাঁদের আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। আদালতে ১৬৪ ধারায় দেওয়া জবানবন্দিতে পারভীন ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন। তিনি আরো জানান, এ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে সাতজন ব্যক্তি জড়িত রয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে তাঁরা জানতে পেরেছেন। অন্য হত্যাকারীদেরও গ্রেপ্তারের প্রক্রিয়া চলছে।

 

 

আপডেট : শুক্রবার সেপ্টেম্বর ১২,২০১৪/ ০৪:৩৮ এএম/ রাজবাড়ী নিউজ২৪.কম

 

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর