নিয়োগ পেলেন রাজবাড়ী সুইমিং পুলের ৩জন সাঁতার প্রশিক্ষক : আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর প্রশিক্ষণ উদ্বোধন

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ১:৪৫ অপরাহ্ণ ,২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৪ | আপডেট: ২:১৫ অপরাহ্ণ ,২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৪
পিকচার

স্টাফ রিপোর্টার : রাজবাড়ী সুইমিং পুলের ৩জন সাঁতার প্রশিক্ষকের নিয়োগপত্র দেয়া হয়েছে।  ২২ সেপ্টেম্বর সোমবার সন্ধ্যায় জেলা প্রশাসকের স্বাক্ষরিত নিয়োগপত্র অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ও সাঁতার প্রশিক্ষণ কমিটির আহবায়ক সোনামনি চাকমা আনুষ্ঠানিকভাবে তাদের হাতে তুলে দেন।

এ সময় জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম সফি, সাঁতার প্রশিক্ষণ কমিটির সদস্য-সচিব গোলাম মওলা এবং সদস্য মোঃ হেদায়েত আলী সোহরাব, প্রকৌশলী মোঃ আমজাদ হেসেন ও এডঃ তসলিম উদ্দিন আহম্মেদ তপন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। নিয়োগ পত্রপ্রাপ্ত ৩জন সাঁতার প্রশিক্ষক হলেন ঃ প্রধান কোচ এএসএম এরশাদুন্নবী, সহকারী কোচ শের আলী শরীফ এবং রুমানা রুমা। আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর প্রশিক্ষণ উদ্বোধন করা হবে।

নিয়োগপ্রাপ্তদের মধ্যে প্রধান কোচ এএসএম এরশাদুন্নবী একজন খ্যাতিমান সাঁতারু। সুদীর্ঘ অর্ধ-শতাব্দীরও বেশী সময় ধরে সাঁতারের সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িত থাকা এরশাদুন্নবী ১৯৮১ সালে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের অধীনে জাতীয় সাঁতার প্রশিক্ষকের চাকুরী গ্রহণের পূর্বে ১৯৬২ সাল থেকে ১৯৭৭ সাল পর্যন্ত স্থানীয় ও জাতীয় পর্যায়ের বিভিন্ন সাঁতার প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেন। ১৯৭৩ সালে বাংলাদেশ সুইমিং ফেডারেশন তাকে বিশেষ পুরস্কার এবং ১৯৭৭ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ব্লু পুরস্কার পান। ১৯৮১ সালে অনুষ্ঠিত প্রথম মিনি বাংলাদেশ অলিম্পিকে অংশগ্রহণ করেন। জাতীয় সাঁতার প্রশিক্ষকের চাকুরী করাকালীন সময়েবাংলাদেশ সেনাবাহিনী, নৌ-বাহিনী, বিমান বাহিনী ও পুলিশ বাহিনীকে সাঁতার প্রশিক্ষণ দেয়ার পাশাপাশি কুমিল্লা, যশোর, ঝিনাইদহ, রাজশাহী, পটুয়াখালী, পিরোজপুর, বরিশাল, মুন্সিগঞ্জ, নোয়াখালী ও রাজবাড়ী জেলায় জেলা সাঁতার প্রশিক্ষক হিসেবে এবং শেষ ৩বছর চীফ সুইমিং কোচ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ব্যক্তিগত জীবনে তিনি ২পুত্র সন্তানের জনক। ১ম পুত্র কোরআনে হাফেজ এবং প্রতিষ্ঠিত মৎস্য ও পোল্ট্রী খামারী। ছোট ছেলে মানিকগঞ্জ মেডিকেল কলেজে অধ্যয়নরত।

সহকারী কোচ হিসেবে নিয়োগপ্রাপ্ত রুমানা রুমাও একজন খ্যাতিমান সাঁতারু। ছোটবেলা থেকেই সাঁতারের সাথে সম্পৃক্ত রুমা ১৯৯৬ সালে রাজবাড়ী জেলা মহিলা ক্রীড়া সংস্থার পক্ষে জাতীয় সাঁতার প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহন করে ভাল পারফরমেন্স দেখাতে সক্ষম হন। তখন থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত তিনি সফলভাবে রাজবাড়ী জেলার হয়ে জাতীয় পর্যায়ের বিভিন্ন সাঁতার প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহন করেন। ২০০০ সালে তিনি বিকেএসপি ও সুমিং ফেডারেশনের সহযোগিতায় জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের আয়োজনে মুন্সীগঞ্জে অনুষ্ঠিত ৬মাসের বিশেষ সাঁতার প্রশিক্ষনে অংশগ্রহনের সুযোগ পান। অপর সহকারী কোচ হিসেবে নিয়োগপ্রাপ্ত শের আলী শরীফও একজন খ্যাতিমান প্রবীণ সাঁতারু।

 

 

আপডেট : মঙ্গলবার সেপ্টেম্বর ২৩,২০১৪/ ০৭:৪৩ পিএম/ আশিক

 


এই নিউজটি 1144 বার পড়া হয়েছে

Comments

comments