রাজবাড়ী সদর উপজেলার খানগঞ্জ ইউপির মহিলা মেম্বারকে অপহরনের অভিযোগে মামলা

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ৩:২৮ পূর্বাহ্ণ ,২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৪ | আপডেট: ৩:২৮ পূর্বাহ্ণ ,২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৪
পিকচার

স্টাফ রিপোর্টার : রাজবাড়ী সদর উপজেলার খানগঞ্জ ইউপির সংরক্ষিত মহিলা মেম্বার ও খোর্দ্দদাদপুর গ্রামের বাসিন্দা চামেলী বেগম (৩২)কে অপহরনের অভিযোগে হরিহরপুর গ্রামের বালি আক্কাস (৪০)-এর বিরুদ্ধে আদালতে দায়েরকৃত মামলাটি গত ২৩ সেপ্টেম্বর থানায় রেকর্ড হয়েছে।

গত ১৫ই আগস্ট সন্ধ্যা ৭টার দিকে বাড়ীর পাশ থেকে আক্কাস ও তার সহযোগিরা ওই গৃহবধুকে জোর পূর্বক মাইক্রোবাসযোগে অপহরণ করে নেয় বলে মামলায় অভিযোগ করা হয়। তবে এ মামলার ব্যাপারে এলাকাবাসী ও মেম্বার চামেলী বেগম ভিন্ন তথ্য জানিয়েছে।

মামলা সূত্রে জানাযায়, খোদ্দর্দাদপুর গ্রামের রমজান মল্লিকের স্ত্রী চামেলী বেগমকে বালি আক্কাস উত্যক্ত করাসহ কু-প্রস্তাব দিতো। এ প্রস্তাবে সে রাজী না হয়ে তার স্বামী রমজান মল্লিককে জানায়। রমজান মল্লিক আক্কাসকে এরূপ কাজ থেকে বিরত থাকার জন্য বললে সে আরো ক্ষিপ্ত এবং চামেলীকে অপহরণ করার ষড়যন্ত্র করে। এ জের ধরেই গত ১৫ই আগস্ট সন্ধ্যা ৭টার দিকে পারিবারিক কাজে চামেলী বাড়ীর দক্ষিণ পাশের রাস্তায় আসলে বালি আক্কাস ও তার ৩/৪জন সহযোগি মাইক্রোবাসযোগে এসে তাকে জোর পূর্বক অপহরণ করে নিয়ে যায়।
এ ঘটনায় রমজান মল্লিক থানায় মামলা করতে গেলে থানা কর্তৃপক্ষ আদালতে মামলা করার পরামর্শ দেয়। পরবর্তীতে তিনি গত ২রা সেপ্টেম্বর আদালতে মামলা দায়ের করেন। আদালত মামলাটি থানায় রেকর্ড করার জন্য রাজবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জকে আদেশ প্রদান করে। এ আদেশের প্রেক্ষিতে গত ২৩ সেপ্টেম্বর মামলাটি রাজবাড়ী থানায় রেকর্ড হয়।

অপরদিকে এলাকাবাসী ও মেম্বার চামেলী বেগম জানায়, তিনি খানগঞ্জ ইউপির ৪, ৫ ও ৬নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা মেম্বার। তার সাথে তার ভ্যান চালক স্বামী রমজান মল্লিকের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে দাম্পত্য কলহ চলে আসার একপর্যায়ে প্রায় ৫মাস পূর্বে রমজান মল্লিক তাকে বাড়ী থেকে তাড়িয়ে দেয়। এমনকি তার ভয়ে তিনি ইউনিয়ন পরিষদে আসা-যাওয়াও বন্ধ করে দেয়। সম্প্রতি রমজান মল্লিক দাম্পত্য সম্পর্ক বজায় রাখার বিনিময়ে যৌতুক দাবী করলে আমি(চামেলী বেগম) বাদী হয়ে গত ২৮ আগস্ট রাজবাড়ীর ১নং আমলী আদালতে যৌতুক নিরোধ আইনে স্বামী রমজান মল্লিকের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করলে আদালত অভিযোগ আমলে নিয়ে সমনের আদেশ দেন।

এছাড়াও বালি আক্কাসের কাছ থেকে আমার স্বামী রমজান মল্লিক বিভিন্ন সময় টাকা ধার নিয়ে শোধ না করে তাকে ঘুরাতে থাকলে সে টাকার জন্য চাপ দিলে স্বামী আমাকে ও তাকে জড়িয়ে কুৎসা রটানো শুরু করে এবং একপর্যায়ে নির্যাতন করে বাড়ী থেকে তাড়িয়ে দেয়। বর্তমানে আমি সদর উপজেলার দাদশী ইউনিয়নের অন্তর্গত রামচন্দ্রপুর গ্রামের পরের বাড়ীতে গৃহপরিচারিকার কাজ করা বড় বোনের বাড়ীতে আশ্রিত। এছাড়াও বাড়ী থেকে তাড়িয়ে দেয়ার পর আমি রাজবাড়ী শহরের পাবলিক হেলথ এলাকায় বাসা ভাড়া থেকে শ্রীপুরের(ইসলামিক ফাউন্ডেশন অফিসের বিপরীতে) একটি ম্যাচে রান্নার কাজও করি।

এতে ক্ষুদ্ধ হয়ে আমার স্বামী রমজান মল্লিক বাদী হয়ে হরিহরপুর গ্রামের বালি আক্কাসকে জব্দ করতে গত ২ সেপ্টেম্বর রাজবাড়ীর আদালতে অপহরণ মামলা ঠুকে দেয়। যা হয়রানীমূলক।

 

 

আপডেট : বৃহস্পতিবার সেপ্টেম্বর ২৫,২০১৪/ ০৯:২৪ এএম/ আশিক

 

 


এই নিউজটি 1095 বার পড়া হয়েছে

Comments

comments