ম্যানেজিং কমিটির সভাকে কেন্দ্র করে মাটিপাড়া কাজী ছমির উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ে হাতাহাতি ও ভাংচুর

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ৩:০১ পূর্বাহ্ণ ,২৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৪ | আপডেট: ৩:০২ পূর্বাহ্ণ ,২৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৪
পিকচার

স্টাফ রিপোর্টার : রাজবাড়ী সদর উপজেলার মাটিপাড়া কাজী ছমির উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ে গতকাল ২৭ সেপ্টেম্বর ম্যানেজিং কমিটির সভাকে কেন্দ্র করে প্রধান শিক্ষক ও সভাপতি পক্ষের লোকজনের মধ্যে হাতাহাতি ও আসবাবপত্র ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় উভয় পক্ষ থানায় পৃথক মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিয়েছে।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক খোন্দকার ফিরোজ আহম্মেদ জানান, গতকাল ২৭ সেপ্টেম্বর সকালে ম্যানেজিং কমিটির দিন ধার্য্য ছিল। বিদ্যালয়ের সভাপতি আবুল ফায়েজ সভায় উপস্থিত না হলে যথাসময়ে তার অনুপস্থিতিতেই সভা শুরু হয়। সভার শেষ পর্যায়ে দুপুর পৌনে ২টার দিকে সে স্কুলে এসে হৈ চৈ শুরু করে এবং রেজুলেশন খাতা জোর পূর্বক ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে। এ সময় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য কামাল হোসেন রেজা রেজুলেশন খাতা ছিনিয়ে নেয়ার সময় বাঁধা দেওয়ায় সভাপতি আবুল ফায়েজ ও তার লোকজন তাকে মারপিট করাসহ পিস্তল ঠেকিয়ে (বাড়ী নির্মাণ কাজের রড কেনা বাবদ রাখা) দেড় লক্ষ টাকা ছিনিয়ে নেয়। এ সময় তারা কার্যনির্বাহী কমিটির আরেক সদস্য আজাহার মন্ডলকেও মারপিট করে এবং আমাকেও (প্রধান শিক্ষক) লাঞ্ছিত করে।

বিদ্যালয়ের সভাপতি আবুল ফায়েজ জানান, আমাকে না জানিয়ে গতকাল ২৭ সেপ্টেম্বর সকালে প্রধান শিক্ষক খোন্দকার ফিরোজ আহম্মেদ তার লোকজন নিয়ে ম্যানেজিং কমিটির সভা শুরু করে। বিষয়টি আমি জানার পর স্কুলে আসলে তারা আমাকে লাঞ্ছিত করে। এছাড়াও তারা আমার ভাই ওই বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক সাহিদুল ইসলাম লালকেও লাঞ্ছিত করে। এছাড়াও তারা স্কুলের আসবাবপত্র ভাংচুর করে। তিনি আরো জানান, প্রধান শিক্ষকের স্বেচ্ছাতারিতার কারণে সম্প্রতি স্কুলের অভিভাবকবৃন্দ আদালতে মামলা পর্যন্ত করেছে। তার অপকর্মে স্কুলের অভিভাবকরা অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে। তার এরূপ কাজে প্রতিবাদ করায় সে আমার ওপর ক্ষুব্ধ ছিলো। যে কারনে সে তার লোকজন নিয়ে আমাকেসহ আমার লোকজনকে লাঞ্ছিত করেছে।

এদিকে স্কুল ক্যাম্পাসে প্রধান শিক্ষক ও সভাপতির এমন ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছে অভিভাবক মহল।

 

আপডেট : রবিবার সেপ্টেম্বর ২৮,২০১৪/ ০৮:৫৮ পিএম/ আশিক

 


এই নিউজটি 1190 বার পড়া হয়েছে

Comments

comments