পাংশায় অস্ত্রের মুখে ব্যবসায়ীর কাছ থেকে চাঁদা-স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর আদায়

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ৯:০৮ পূর্বাহ্ণ ,৬ এপ্রিল, ২০১৪ | আপডেট: ৯:০৮ পূর্বাহ্ণ ,৬ এপ্রিল, ২০১৪
পিকচার

স্টাফ রিপোর্টার : অস্ত্রের মুখে গত ৩০ মার্চ রাতে পাংশা উপজেলা সদরের মৈশালা গ্রামের ব্যবসায়ী লিয়াকত আলী সরদারের কাছ থেকে ৫০হাজার টাকা চাঁদা আদায় এবং অপহরণ করে ১০০ টাকার ৩টি অলিখিত স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নিয়েছে দুর্বৃত্তরা।

এ ঘটনায় গত ২ এপ্রিল লিয়াকত আলী সরদার বাদী হয়ে ১৬জনের বিরুদ্ধে রাজবাড়ীর ২নং আমলী আদালতে মামলা দায়ের করেছে। আদালত মামলার বিষয়ে তদনত্ম করে প্রতিবেদন দেয়ার জন্য পাংশা থানার ওসিকে আদেশ দিয়েছে।

মামলা সুত্রে প্রকাশ, পার্শ্ববর্তী বড়গাছি গ্রামের ২সহোদর মোহাম্মদ আলী সরদার ও চাঁদ আলী সরদার এবং তাদের সহযোগীরা মৈশালা গ্রামের বিশিষ্ট ভুষিমাল ও জমি বেচাকেনা ব্যবসায়ী লিয়াকত আলী সরদারের কাছে অবৈধভাবে চাঁদা দাবী করলে তিনি চাঁদা দিতে অসৃকীতি জানান এবং চাঁদা দাবীর বিষয়টি স্থানীয় জনসাধারনকে অবহিত করেন। এতে তারা ক্ষুদ্ধ হয়। গত ৩০ মার্চ রাত সাড়ে ৮টার দিকে মোহাম্মদ ও চাঁদসহ তাদের সহযোগী মৈশালার মোমিন মন্ডল, রঘুনাথপুরের জাহাঙ্গীর সরদার, আলমগীর সরদার, ভাষাই সরদার, মনির সরদার, জিয়া সরদার, উজ্জল সরদার, খৈয়াম সরদার ও ওবাদ সরদার, বড়গাছির খোকন সরদার, কামাল সরদার ও নাসির সরদার এবং কুলটিয়ার রিপন সরদার ও সোবহান ডাক্তার সশস্ত্র অবস্থায় লিয়াকত আলী সরদারের বাড়ীতে চড়াও হয়। মোমিন মন্ডল লিয়াকত সরদারের বুকে আগ্নেয়াস্ত্র ধরে তাৎক্ষণিকভাবে ৫লাখ টাকা চাঁদা দাবী করে এবং না দিলে গুলি করে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। ভয়ে লিয়াকত সরদার তার ছেলেকে দিয়ে ঘর থেকে ৫০হাজার টাকা আনিয়ে তাদের হাতে দিলে তারা সেই টাকাসহ লিয়াকতকে অস্ত্রের মুখে অপহরণ করে আলমগীর সরদারের বাড়ীতে (রঘুনাথপুরে) নিয়ে যায়। যাওয়ার সময় তারা লিয়াকতের বাড়ীর লোকজনকে ‘রাতের মধ্যেই অবশিষ্ট সাড়ে ৪লাখ টাকা সংগ্রহ করে লিয়াকতকে ছাড়িয়ে আনার’ জন্য নির্দেশ দিয়ে যায়। আলমগীরের বাড়ীতে নিয়ে যাওয়ার পর অস্ত্রের মুখে তার কাছ থেকে ১০০ টাকা মূল্যের ৩টি অলিখিত সাদা স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নেয়া হয়। ইত্যোবসরে লিয়াকতের পরিবারের সদস্যরা স্থানীয় লোকজনকে নিয়ে আলমগীরের বাড়ী ঘিরে ফেললে তারা লিয়াকতকে ছেড়ে দেয়।

এ ঘটনায় গত ২ এপ্রিল লিয়াকত আলী সরদার বাদী হয়ে রাজবাড়ীর ২ নং আমলী আদালতে দণ্ড বিধির ৩৬৪/৩৮৫/৩৮৬/৩৮৭ ধারায় মামলা দায়ের করলে আদালতের বিচারক মামলার বিষয়ে তদনত্ম করে প্রতিবেদন দেয়ার জন্য পাংশা থানার ওসিকে আদেশ দেন।

 


এই নিউজটি 1630 বার পড়া হয়েছে

Comments

comments