পূজা ও ঈদ ভিন্ন ধর্মের লোকজনের হলেও উৎসব যেন সকলেরই : জেলা প্রশাসক রফিকুল ইসলাম খান

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ৫:৩০ পূর্বাহ্ণ ,৩ অক্টোবর, ২০১৪ | আপডেট: ৫:৩০ পূর্বাহ্ণ ,৩ অক্টোবর, ২০১৪
পিকচার

মোক্তার হোসেন, স্টাফ রিপের্টার : রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক মোঃ রফিকুল ইসলাম খান বলেছেন, পূজা ও ঈদ ভিন্ন ধর্মের লোকজনের হলেও উৎসব যেন সকলেরই। শারদীয় দুর্গোৎসবকে ঘিরে হিন্দু মুসলিম পরস্পর এক হয়ে পূজামন্ডপে শান্তিপূর্ণ চলাফেরা সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বিরল দৃষ্টান্ত বটে। তিনি বলেন, এই অসাম্প্রদায়িক চেতনা ধারণ করেই বাংলাদেশকে ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশ এবং ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নতশীল দেশ হিসেবে গড়ে তুলতে আমাদের স্ব-স্ব অবস্থান থেকে কাজ করে যেতে হবে।

গতকাল বৃহস্পতিবার বিকালে পাংশা উপজেলার ভাই ভাই সংঘ পূজামন্ডপে শারদীয়া দুর্গোৎসব উপলক্ষে এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক মোঃ রফিকুল ইসলাম খান এসব কথা বলেন।

তিনি বিকাল ৪টার দিকে ভাই ভাই সংঘ পূজামন্ডপে মঙ্গল প্রদ্বীপ প্রজ্জ্বলনের মধ্য দিয়ে মতবিনিময় সভার উদ্বোধন করেন। ভাই ভাই সংঘ পূজা মন্ডপের সভাপতি উত্তম কুমার কুন্ডুর সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে পাংশা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ ফরিদ হাসান ওদুদ, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম খান ও পাংশা উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি সুব্রত কুমার দাস (সাগর) বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসকের সহধর্মিনী ও পাংশা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সহধর্মিনী বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

মতবিনিময় সভায় উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের উপদেষ্টা অনিল কুমার বিশ্বাস, সহ-সভাপতি প্রান্তোষ কুন্ডু, সাধারণ সম্পাদক নির্মল কুমার কুন্ডু, সাবেক সাধারণ সম্পাদক স্বপন কুমার সরকার, পৌরসভা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি সুব্রত দে, সাধারণ সম্পাদক গৌতম বসাক, সুনীল বিশ্বাস, তেজেন্দ্র নাথ মন্ডল, ভৈরব চন্দ্র পাল, দীপক কুমার কুন্ডু, উত্তম কুমার রায় ও সমীর কুমার দাস প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানের শুরুতে অতিথিবৃন্দকে ফুলেল অভ্যর্থনা জানান ভাই ভাই সংঘ পূজামন্দিরের নেতৃবৃন্দ। পরে জেলা প্রশাসক পাংশা শহরের স্টেশন বাজার কেন্দ্রীয় সার্বজনীন দুর্গা মন্দিরের পূজামন্ডপ পরিদর্শন করেন।

 

 

আপডেট : শুক্রবার অক্টোবর ০৩,২০১৪/ ‌১১:২৮ এএম/ আশিক

 

 

 

 


এই নিউজটি 1095 বার পড়া হয়েছে

Comments

comments