দৌলতদিয়া ঘাট পরিদর্শনে এসে জামায়াত শিবিরকে ওসুরের সঙ্গে তুলনা করলেন নৌ-মন্ত্রী শাহজাহান খান

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ৬:১০ অপরাহ্ণ ,৩ অক্টোবর, ২০১৪ | আপডেট: ৬:১২ অপরাহ্ণ ,৩ অক্টোবর, ২০১৪
পিকচার

নিজস্ব প্রতিবেদক : জামায়াত-শিবিরকে ওসুরের সঙ্গে তুলনা করে নৌ-পরিবহন মন্ত্রী শাহজাহান খান বলেছেন, হিন্দু শাস্ত্রে ওসুর যখন সকল অপকর্ম করে পৃথিবীতে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করেছিল তখন মা দূর্গা দেবী তাকে লড়াই সংগ্রামের মাধ্যমে পরাজিত করে পৃথিবীতে শান্তি প্রতিষ্ঠিত করেছিল। ঠিক তেমনি ২০১৩ সালে জামাত কর্মীরা কোরআন শরীফ পুড়িয়েছে, মসজিদ, মন্দিরে আগুন দিয়েছে। মন্দিরের প্রতিমা ভাংচুর করেছে। বাসে আগুন দিয়েছে। বাসের মধ্যে পেট্রোল বোমা মেরে ঘুমন্ত মানুষকে হত্যা করেছে। পুলিশকে হত্যা করেছে। এমনকি বৌদ্ধদের মন্দিরেও হামলা করে ভাংচুর করে গোটা বাংলাদেশে তারা অশান্তি সৃষ্টি করেছিল। সৃষ্টিকর্তা শেখ হাসিনাকে শক্তি দিয়েছিল। যার কারনে তিনি দেশের সকল শ্রেণীর জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করে সেই ওসুর জামাত-শিবিরের বিরুদ্ধে লড়াই করে দেশে শান্তি প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন। বিগত ৫ই জানুয়ারীর নির্বাচনের পর থেকে আজ পর্যন্ত দেশে শান্তি বিরাজ করছে। গতকাল শুক্রবার বিকেলে দক্ষিণাঞ্চলের প্রবেশদ্বার খ্যাত দৌলতদিয়া ঘাট পরিদর্শনে এসে স্থানীয় বাজার শারদীয় দূর্গা মন্দির দেখতে গিয়ে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন।

এ সময় রাজবাড়ী-১ আসনের এমপি আলহাজ্ব কাজী কেরামত আলী, রাজবাড়ী সংরক্ষিত মহিলা আসনের এমপি কামরুন নাহার চৌধুরী লাভলী, জেলা প্রশাসক মোঃ রফিকুল ইসলাম খান, পুলিশ সুপার তাপতুন নাসরীন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ তোফায়েল আহম্মেদ, গোয়ালন্দ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম, দৌলতদিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম মন্ডল উপস্থিত ছিলেন।

নৌ-পরিবহন মন্ত্রী শাহজাহান খান বলেন, ধর্ম যার যার, উৎসব সবার। স্বাধীনতার যুদ্ধে বাঙ্গালী জাতির শরীর থেকে রক্ত ঝড়েছে। কিন্তু রক্ত দেখে বোঝা যায়নি কোনটি মসুলমানের রক্ত, কোন, হিন্দু’র রক্ত, কোনটি বৌদ্ধ-খ্রিষ্টানের রক্ত। ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে সকলে মিলে সে দিন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে যেভাবে দেশ স্বাধীন করেছিল ঠিক তেমনি বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এদেশের মানুষ অর্থনীতিতে মুক্তি পাবে।

তিনি বলেন, আমরা যখন ১৯৯৬ সালে প্রথম ক্ষমতায় আসি তখন দেশে খাদ্য ঘাটতি ছিল ৪০ লক্ষ মেট্রিক টন। আমরা সেই ৪০লক্ষ মেট্রিক টন খাদ্য ঘাটতি পূরন করে ১১লক্ষ মেট্রিক খাদ্য রিজার্ভ রেখে যাই। এরপর বিএনপি ক্ষমতায় আসে। আমরা যখন আবার ২০০৮ সালে ক্ষমতায় আসি তখন দেশে খাদ্য ঘাটতি ছিল ৩৫লক্ষ মেট্রিক টন। আমরা সেই খাদ্য ঘাটতি পূরন করেছি। আগে বিদেশ থেকে খাদ্য আমদানী করতে হতো। এখন আমরা বিদেশে খাদ্য রপ্তানী করছি। শুধু সিঙ্গাপুরেই ৫০ লক্ষ মেট্রিক টন খাদ্য রপ্তানী করা হয়েছে। এতো কিছু করার পরও বিএনপি’র মহাসচিব মির্জা ফকরুল বলেন তাদের যা কিছু অর্জন ছিল আমরা তা ধবংশ করেছি। মির্জা ফকরুলের প্রশ্নের জবাবে আমি বলেছিলাম ফকরুল সাহেব ঠিকই বলেছে কারণ বিএনপি অর্জন করেছিল জঙ্গীবাদের। তারা সে সময়ে শ্লোগান দিতো আমরা হবো তালেবান বাংলা হবে আফগান। তারা বাংলাদেশকে আফগানিস্থান বানাতে চেয়েছিল। আমরা জঙ্গীদের ধবংশ করেছি। সেই তালেবানদের ধ্বংশ করেছি।

নৌ-পরিবহন মন্ত্রী শাহজাহান খান আরো বলেন, বাংলাদেশে এখন পর্যাপ্ত পরিমানে অর্থ রিজার্ভ আছে। এটা সম্ভব হয়েছে আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্যে। তার পরিকল্পনায় দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশ ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশ ও ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশে পরিণত হবে। তখন বিশ্বের উন্নত দেশের সাথে প্রতিযোগিতা করে বাংলাদেশ আরো এগিয়ে যাবে।SAM_9510

রাজবাড়ী-১ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব কাজী কেরামত আলী শারদীয় দূর্গা পূজার শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, দক্ষিণ বঙ্গের প্রবেশদ্বার এই দৌলতদিয়া ঘাট দিয়ে মানুষ যাতে নিবিঘ্নে বাড়ীতে যেতে পারে সেজন্য ঘাটে সেবার মান আরো ভাল করতে হবে। ঘাটের পরিবেশ ভাল রাখার জন্যে ট্রাকের জন্য একটি টার্মিনাল করা হবে। রাজবাড়ীতে হিন্দু মসুলমানের মধ্যে কোন ভেদাভেদ নাই। যার যার ধর্ম সেই সেই পালন করবে। তিনি দৌলতদিয়া ঘাটে আরো উন্নতি সাধন করার জন্য মন্ত্রীকে অনুরোধ জানান।

সংসদ সদস্য কামরুন নাহার চৌধুরী বলেন, আমরা বড়ই সৌভাগ্যবান যে মন্ত্রী মহোদয়কে আমরা আজ কাছে পেয়েছি। রাজবাড়ীর সকল স্থানে শান্তিপূর্ণভাবে পূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। শান্তিপূর্ণভাবে পূজা অনুষ্ঠিত হওয়ার জন্য আমাদের দিক নির্দেশনা ছিল। আমরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে কাজ করে যাচ্ছি।

জেলা প্রশাসক মোঃ রফিকুল ইসলাম খান বলেন, আগে আমাদের মাথাপিছু আয় ছিল ৫.৯০শত ডলার। এ সরকারের আমলে আমাদের মাথা পিছু আয় বেড়ে ১২শত ডলার হয়েছে। বাংলাদেশ ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশ ও ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশে পরিনিত হবে। আমরা যে উন্নত দেশের স্বপ্ন দেখছি সে লক্ষ্যে পৌঁছাতে হলে আমাদের মাথা পিছু আয় ২১শত ডলারে নিয়ে যেতে হবে। বিশ্বের মানচিত্রে একদিন বাংলাদেশের পতাকা পতপত করে উড়বে।

পরে নৌ মন্ত্রী শাহজাহান খান দৌলতদিয়া লঞ্চ ও ফেরীঘাট এবং বাস টার্মিনাল পরিদর্শন করেন। এর আগে মন্ত্রী দৌলতদিয়া রেষ্ট হাউসে এসে পৌছালে তাকে গার্ড অব অনার দেয় পুলিশের একটি দল।

 

 

আপডেট : শনিবার অক্টোবর ০৪,২০১৪/ ‌১২:০৭ এএম/ আশিক

 

 


এই নিউজটি 1349 বার পড়া হয়েছে

Comments

comments