,

গোয়ালন্দে রিপন হত্যা মামলার আসামি জনতার হাতে আটক : গণধোলাই শেষে পুলিশে সোপর্দ

News

গোয়ালন্দ প্রতিনিধি : রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সাইফুল ইসলাম রিপন হত্যা মামলার অন্যতম পলাতক আসামি হারুন শেখকে (৩৩) গত শুক্রবার রাতে আাটক করেছে এলাকাবাসী। পরে গণধোলাই দিয়ে তাকে পুলিশে সোপর্দ করা হয়। সে কুষ্টিয়ার খোকশা থানার গোফগ্রামের আব্দুস সাত্তার শেখের ছেলে।

গোয়ালন্দঘাট থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গ্রেপ্তারকৃত হারুন গোয়ালন্দের চাঞ্চল্যকর রিপন হত্যা মামলার অন্যতম পলাতক আসামি। শুক্রবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে দৌলতদিয়া লঞ্চ টার্মিনালের পাশে খেয়াঘাটে ভিরে থাকা একটি ডিঙ্গি নৌকায় বসে হারুন শেখ তার অপর দুই বন্ধুর সঙ্গে মাদক সেবন করছিল। এ সময় খবর পেয়ে এলাকার লোকজন খেয়াঘাট ঘিরে ফেলে হারুনকে আটক করে। এর আগে লোকজনের উপস্থিতি টের পেয়ে হারুনের সঙ্গী জোসন প্রামাণিক ও শরীফ বেপারি পালিয়ে যায়। পরে হারুনকে বেদম গণপিটুনি দিয়ে স্থানীয় পুলিশে সোপর্দ করা হয়। গণপিটুনিতে আহত হারুনকে পুলিশি প্রহরায় গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে গোয়ালন্দঘাট থানার ওসি মো. আব্দুল খালেক বলেন, ‘গ্রেপ্তারকৃত হারুন শেখ পুলিশের তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী। সে গোয়ালন্দের চাঞ্চল্যকর রিপন হত্যা মামলার অন্যতম আসামি।’ তিনি আরো জানান, রিপন হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত পাঁচ আসামির মধ্যে চারজনকে গ্রেপ্তার করা হলো। অপর আসামি ইয়াছিন পলাতক থাকায় তাকে গ্রেপ্তারে পুলিশি অভিযান অব্যাহত আছে।

উল্লেখ্য, গোয়ালন্দ উপজেলা বিএনপির সহসভাপতি ও দৌলতদিয়া বাজার ব্যবসায়ী পরিষদের সভাপতি মো. মোহন মন্ডলের একমাত্র ছেলে সাইফুল ইসলাম ওরফে রিপন। তিনি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সাউথ ইস্ট ইউনিভার্সিটির এলএলবি শেষ বর্ষের ছাত্র ছিলেন। গত ৭ সেপ্টেম্বর ভোররাতের দিকে দৌলতদিয়া যৌনপল্লীর ভিতরে একদল দুর্বৃত্ত রিপনকে গুলি করে হত্যা করে।

 

 

আপডেট : রবিবার অক্টোবর ১২,২০১৪/ ‌১১:৪৭ এএম/ আশিক

 

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর