মোতাহার হোসেন স্মৃতি ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনালে বহরপুরকে হারিয়ে মাঝবাড়ী চ্যাম্পিয়ন

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ২:৪২ অপরাহ্ণ ,২২ অক্টোবর, ২০১৪ | আপডেট: ২:৪৬ অপরাহ্ণ ,২২ অক্টোবর, ২০১৪
পিকচার

স্টাফ রিপোর্টার : রাজবাড়ী সদর উপজেলার চন্দনী ইউনিয়নের চাঁদপুর হাই স্কুল মাঠে গতকাল ২১ অক্টোবর বিকেলে মোতাহার হোসেন নিজমা স্মৃতি ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। আফতাব উদ্দিন স্মৃতি সংঘ আয়োজিত নক আউট পদ্ধতিতে এ ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনালে ৩-১ গোলে বহরপুর বিএমজিএস ক্লাবকে হারিয়ে মাঝবাড়ী দয়ারামপুর টাইগার ক্লাব চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। প্রধান অতিথি হিসেবে রাজবাড়ী-১ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব কাজী কেরামত আলী ও বিশেষ অতিথি হিসেবে সদর উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাডঃ এম.এ খালেক খেলাটি উপভোগ করেন।

আক্রমন ও পাল্টা আক্রমনের মধ্য দিয়ে খেলা শুরু হলেও প্রথমার্ধের ৫ মিনিটের মধ্যেই বহরপুর বিএমজিএস ক্লাব গোল খেয়ে পিছিয়ে পড়ে। ১-০ গোলের ব্যবধানেই প্রথমার্ধের খেলা শেষ হয়। এরপর দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকেই বহরপুর বিএমজিএস ক্লাব গোল শোধ করার জন্য মরিয়া হয়ে খেললেও আরো দুটি গোল খেয়ে ৩-০ গোলে পিছয়ে পড়ে। তবে শেষ মুর্হুতে বহরপুর বিএমজিএস একটি গোল পরিশোধ করলে খেলাটি ৩-১ গোলে নিস্পত্তি হয়।

পরে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন সংসদ সদস্য আলহাজ্ব কাজী কেরামত আলী। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সদর উপজেলার চেয়ারম্যান এ্যাডঃ এম.এ খালেক, অগ্রণী ব্যাংক লিঃ কর্মচারী সংসদ (সিবিএ) সেন্টাল কমিটির সভাপতি খন্দকার নজরুল ইসলাম মনি, চন্দনী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল মালেক শিকদার ও চন্দনী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ আকরাম হোসেন।

আফতাব উদ্দিন স্মৃতি সংঘের সভাপতি মোঃ মোজাহার হোসেন মজা’র সভাপতিত্বে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে চন্দনী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মোঃ এ,কে,এম সিরাজুল আলম চৌধুরী, চন্দনী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মোঃ আব্দুর রবসহ খানগঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যান আতাহার হোসেন তকদির ও মদাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবুল কালাম উপস্থিত ছিলেন।

পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে সংসদ সদস্য আলহাজ্ব কাজী কেরামত আলী বলেন, বাংলাদেশে ফুটবল যে এখনো জনপ্রিয় খেলা সেটা আজকের এই বিপুল সংখ্যক দর্শকের উপস্থিতিতেই প্রমাণ করে। খুব ভাল খেলা হয়েছে। যারা এই টুর্নামেন্টের আয়োজন করেছে আমি তাদেরকে ধন্যবাদ জানাই। তিনি বলেন আমাদের সরকার ক্রীড়া প্রেমী সরকার। সরকার হারিয়ে যাওয়া গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী খেলা গুলো ধরে রাখার জন্য নানা প্রদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। অর্থ ব্যয় করছে। আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতায় এলেই দেশে উন্নয়ন হয়। ক্রীড়াঙ্গনে উন্নয়ন হয়। a2

উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাডঃ এম.এ খালেক বলেন, ফুটবল অত্যন্ত জনপ্রিয় একটি খেলা। আমাদের আরো বেশী বেশী করে এ ধরণের টুর্নামেন্টের আয়োজন করা উচিত। যাতে এলাকার উঠতি বয়সের ছেলেরা খেলাধুলার মধ্যে থাকতে পারে। তিনি বলেন, মাদক থেকে সবাইকে সাবধান থাকতে হবে। কারণ কেউ যদি মাদকাসক্ত হয় সে তো ধ্বংশ হবেই তার পরিবারটিও ধ্বংশ হয়ে যাবে। তোমরা পড়াশুনা ও খেলাধুলা বেশী করে করবে তাহলে মাদক থেকে দুরে থাকতে পারবে।

পুরস্কার বিতরনী অন্ষ্ঠুানে উপস্থাপনা করেন আফতাব উদ্দিন স্মৃতি সংঘের সদস্য আব্দুল গফুর ও সার্বিক পরিচালনা করেন চন্দনী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক এবং আফতাব উদ্দিন স্মৃতি সংঘের সেক্রেটারী সেলিম রেজা।

বক্তৃতা শেষে চ্যাম্পিয়ন দলকে একটি ২১ ইঞ্চি কালার টেলিভিশন ও রানার্সআপ দল একটি ১৪ ইঞ্চি কালার টেলিভিশন পুরস্কার দেয়া হয়। সংসদ সদস্য আলহাজ্ব কাজী কেরামত আলী ও উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাডঃ এম.এ খালেক বিজয়ী ও রানার্সআপ দলের অধিনায়কের হাতে পুরস্কার তুলে দেন।

উল্লেখ্য, ফাইনাল খেলাটিতে রেফারীর দায়িত্ব পালন করেন ফিফা রেফারী মুন্নাফ সরকার। খেলাটি প্রায় ৫হাজার দর্শক উপভোগ করে।

 

আপডেট : বুধবার অক্টোবর ২২,২০১৪/ ০৮:২৮ পিএম/ আশিক

 


এই নিউজটি 1179 বার পড়া হয়েছে
[fbcomments"]