পাংশায় আধুনিক ধান জাতের বীজ উৎপাদন ও সম্প্রসারণ কর্মসূচির আওতায় মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ১০:৩৪ পূর্বাহ্ণ ,২৫ অক্টোবর, ২০১৪ | আপডেট: ১০:৩৪ পূর্বাহ্ণ ,২৫ অক্টোবর, ২০১৪
পিকচার

পাংশা প্রতিনিধি : বাংলাদেশ ধান গবেষনা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ড. জীবন কৃষ্ণ বিশ্বাস বলেছেন, আধুনিক কৃষি প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে চাষাবাদ করার ফলে একদিকে যেমন ফসলের উৎপাদন বেড়েছে, অপর দিকে উৎপাদন ব্যয় কমেছে। তিনি বলেন, আধুনিক কৃষি প্রযুক্তির চাষাবাদে শিক্ষিত ছেলে মেয়েদের এগিয়ে আসতে হবে। আমরা তাদেরকে নিয়েই মাঠে কাজ করব। কারণ শিক্ষিত কৃষকরাই দেশের আগামী দিনের ভবিষ্যৎ।

গত শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে পাংশা উপজেলার পাট্টা ইউপির মাদুলিয়া গ্রামে আধুনিক ধান জাতের বীজ উৎপাদন ও সম্প্রসারণ কর্মসূচির আওতায় মাঠ দিবস অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন তিনি।
ড. জীবন কৃষ্ণ বিশ্বাস আরো বলেন, কৃষি সভ্যতার ভিত্তি। দিনে-দিনে জনসংখ্যা বাড়ছে। আবাদী জমি কমছে। মানুষের জন্য আমাদের ভাবতে হবে। এখন থেকেই আগামী ২০৭০ সালের মানুষের খাদ্যের চাহিদার কথা ভাবতে হবে। পাশাপাশি দেহের জন্য, স্বাস্থ্যের জন্য জিন সমৃদ্ধ ধানের উৎপাদন বাড়াতে আরো গবেষনা করতে হবে। অত্র এলাকায় জিন সমৃদ্ধ ৪৯, ৫২ ও ৬২ জাতের ব্রি ধান চাষাবাদের জন্য কৃষকদের প্রতি পরামর্শ প্রদান করেন তিনি।

পাংশা উপজেলা কৃষি অফিসার ড.মোঃ শাহ কামাল খানের সভাপতিত্বে মাঠ দিবসের আলোচনা অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ধান গবেষনা ইনস্টিটিউটের পরিচালক (প্রশাসন ও সাধারণ পরিচর্যা) ড. মোঃ শাহজাহান কবীর, অতিরিক্ত পরিচালক (ডিএই, ফরিদপুর অঞ্চল) মুক্তিযোদ্ধা মোঃ খসরু মিয়া, সিএসও এবং প্রধান, এআরডি ড. মোঃ সফিকুল ইসলাম মমিন, উপ-পরিচালক ডিএই, রাজবাড়ী কাজী আব্দুল মান্নান ও পাট্টা ইউপি চেয়ারম্যান শাহ মোঃ রফিকুল ইসলাম। অন্যান্যের মধ্যে কৃষিবীদ মোঃ রফিকুল ইসলাম, সহকারী কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা মোঃ আব্দুস ছাত্তার, শেখ মোঃ রমজান আলী ও কৃষক নরেন্দ্র চন্দ্র জোয়ার্দ্দার প্রমূখ বক্তব্য রাখেন।

আলোচনা অনুষ্ঠানের আগে অতিথিবৃন্দ মাদুলিয়া মাঠের কৃষক নরেন্দ্র চন্দ্র জোয়ার্দ্দারের আবাদকৃত ব্রিধান ৪৯, ৫২ ও ৬২ জাতের রোপা আমন গুটি ইউরিয়া ব্যবহার প্রদর্শনী প্লট পরিদর্শন করেন।

 

 

আপডেট : শনিবার অক্টোবর ২৫,২০১৪/ ‌১০:৩২ এএম/ আশিক

 

 

 

 


এই নিউজটি 1145 বার পড়া হয়েছে

Comments

comments